Posts Tagged ‘সৌম্য মণ্ডল’


লিখেছেন: সৌম্য মন্ডল

প্রসঙ্গ রাষ্ট্রদ্রোহীস্লোগান

Kanhaiya_Kumarএটা অনেক আগেই প্রমাণিত হয়ে গেছে যে, ৯ ফেব্রুয়ারি জওহরলাল নেহেরু ইউনিভার্সিটিতে পাকিস্তান জিন্দাবাদ বা ঐ জাতীয় স্লোগান দেওয়া হয়েছিল হিন্দু ফ্যাসিস্ট আরএসএস ঘনিষ্ঠ ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের (এবিভিপি) সদস্যদের তরফ থেকে। এরপর মূলধারার কিছু সংবাদ মাধ্যমই ফাঁস করে দিয়েছে হাফিজ সাদের মিথ্যে টুইটার পোস্টসহ একাধিক ভুয়ো ছবি ও ভুয়ো ভিডিওর কথা, যা দেখিয়ে আরএসএস, এবিভিপি এবং সংঘ পরিবার অনুগত সংবাদ মাধ্যম জেএনইউএর ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি কমরেড কানহাইয়া, ৯ ফেব্রুয়ারির সাংস্কৃতিক প্রতিবাদ সভার উদ্যোক্তা কমরেড উমর খালিদসহ বাকিদের দেশদ্রোহী প্রমাণ করতে চেয়েছে। (বিস্তারিত…)

Advertisements

লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

indian-media-and-army[মূল্যায়ন পত্রিকার তরফে ত্রয়ন দা আমাকে নেপালের ভূমিকম্প :: একটি রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা বিষয়ক প্রবন্ধ লিখতে বলেছে। দীর্ঘ দিন ঝুলিয়ে অবশেষে লিখতেই হল। রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা নিয়ে লিখতে গেলে সেটা অবধারিতভাবেই রাজনৈতিক মতামত হয়ে দাঁড়াবে। কিন্তু মুশকিল হল এই যে নেপাল সম্বন্ধে আমার যানা বোঝা হল কিছু বই পড়া ভাসা ভাসা জ্ঞ্যান আর গত ভূমি কম্পের সময় ইউএসডিএফ United Students’ Democratic Front (USDF)-এর তরফে নেপালে স্বেচ্ছাশ্রম দিতে গিয়ে যেটুকু নেপাল দেখা। মাও সেতুঙএর ভাষায় যাকে বলে ঘোড়ায় চড়ে ফুল দেখা। মাওএর মতে, কোন বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ অনুসন্ধান না করে সেই বিষয়ে মতামত দেওয়ার কোন অধিকার থাকে না। আর এই বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ স্টাডি আমার নেই। ফলে লেখাটি একটি অহেতুক অকারণ অগভীর প্রবন্ধে পর্যবসিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। আজ কাল কথিত মূল ধারার অধিকাংশ রাজনৈতিক প্রবন্ধের ক্ষেত্রে যা হয় আরকিতবুও এইটুকু সময়ের মধ্যে যা দেখাজানাবোঝা (ভুল বা সঠিক) সেটা পাঠককে জানাবার সুযোগ পেলে মন্দ কি? বাকি বিচার পাঠকের উপরই ন্যস্ত থাকলো।।] (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

mittha-1জাস্ট একটা ন্যানো মিথ্যা, “অশ্বত্থামা হত, ইতি গজ”, তাতেই নাকি যুধিষ্ঠিরকে একবার নরকে ঢুঁ মেরে যেতে হয়েছিল। তাহলে হে পাঠক, আপনি তো অবধারিতভাবেই ভাজা ভাজা হতে চলেছেন!

নরকের ফুটন্ত কড়াই আর এক বিরাট কাঁটা চামচ হাতে সিং এবং লেজওয়ালা লোকটি আপনার জন্য অপেক্ষা করছে। শুধু কি আপনি? দুনিয়া শুদ্ধু লোক নরকে ঢুকতে চলেছে। বিছানায় হিসু করে বাবা বা দাদার ঘাড়ে দোষ চাপানো লজ্জিত শিশু হোক; হল কালেকশান করে নিতান্ত পাস; বা হাতেগোনা কযেকটি প্রশ্ন মুখস্ত করে ফাস্ট ক্লাস বাগানো স্বঘোষিত সবজান্তা হোক; তেলচিটে প্রেমিক বা ঘ্যানঘ্যানে প্রেমিকাকে এড়াতে অহেতুক busy busy হাব ভাব করনেওয়ালারা হোক; ব্রিগেড বা মহামিছিলে লোক সংখ্যা বাড়িয়ে বলা নেতা হোক; বন্যারেল দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা কমিয়ে বলা সরকারি আমলা হোক; যাবতীয় ধরনের মিথ্যাবাদীগণ; বলা ভালো সমস্ত জনগণ নরকে ভাজা ভাজা হবে অবধারিত। যদি না নরক ব্যাপারটা বাস্তবিকই মিথ্যা না হয়ে থাকে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

kisssssssচা এর দোকান থেকে সংবাদ মাধ্যম, বঙ্গরাজনীতি উত্তাল, হৈ হৈ এবং ছি ছিক্কারে, কারণ গত ৫ নভেম্বর রাস্তা অবরোধ করে প্রায় ৩০০ ছাত্র ছাত্রী চুমু খেয়েছে! তাও আবার যাদবপুর থানার সামনে দাড়িয়ে! ওয়াকি টকি হাতে পুলিশ ঘেঁটে লাট, “স্যার”কে কি ভাষায় রিপোর্টিং করবে বুঝতে পারছেনা! অন্য সময় হলে না হয় “হাতে নাতে” ধরা পরা “অপরাধী” মেয়েটির বুকে খানিক হাত বুলিয়ে নেওয়া যেত অথবা যুগলের কাছ থেকে ২০০ টাকা ফাইন, অন্তত পক্ষে ধমকির ফরম্যাটে একটু জ্ঞান তো দেওয়া যেত! মানে ওই পার্কে, বা অন্ধকার গলিতে আইনের রক্ষকরা যে বঙ্গ সংস্কৃতিটা অনুশীলন করেন আর কি! (বিস্তারিত…)


hok-kolorob-321

মাননীয় সম্পাদক

এই সময়

.

গত ১৯ এবং ২০ তারিখ যথাক্রমে ‘এই সময়’ ও Times of India পত্রিকায় দেখলাম যে আমার এবং আরো কয়েকজন বন্ধুর ছবি যাদবপুর কান্ডে ‘সশস্ত্র বহিরাগত’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ‘চক্রান্তকারী মাওবাদী’ হিসেবে প্রত্যাশা মতোই সন্দেহ করা হয়েছে, যা যেকোনো গণআন্দোলনের ক্ষেত্রে করা হয়ে থাকে। নির্দিষ্ট করে বলা না হলেও বলা হয়েছে যে, আমাদের মধ্যে নাকি অনেকে প্রেসিডেন্সি কলেজে বেকার ল্যাব ভাঙচুরে অভিযুক্ত। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

bhagat-singh-2সন্ত্রাসবাদ” খুবই খারাপ ব্যাপার, সন্ত্রাসবাদীরা খারাপ মানুষ, সন্ত্রাসবাদীরা বোমা ফাটিয়ে খুন করে বেড়ায় এই তথ্য হলিউডি, বলিউডি অ্যাকশন সিনেমা আর কম্পিউটার গেম এর কল্যাণে শিশুরাও এ কথা জেনে গেছে। সম্প্রতি বর্তমান শিক্ষাবর্ষে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ক্লাস ৮ এর ইতিহাস বইয়ে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে সশস্ত্র বিপ্লবীদের ইতিহাস সংক্রান্ত চ্যাপ্টার এর নাম “বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদ” হওয়ায় চারিদিকে নিন্দার ঝ উঠেছে, গত ১১ অগাস্ট ক্ষুদিরাম বসুর শহীদ দিবসে বিক্ষোভ দেখিয়েছে কেন্দ্রে শাসক দল বিজেপি, প্রতিবাদ জানিয়েছে ডানবাম নির্বিশেষে রাজনৈতিক দল, সাধারণ মানুষ। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

nabarun-3নবারুণ ভট্টাচার্য, কতসালে কোথায় জন্মেছিলেন, বাবা বিজন ভট্টাচার্য, মা মহাশ্বেতা দেবীর সাথে তার সম্পর্ক, ঋত্বিক ঘটকের হাত ধরে তার বেড়ে ওঠা, তার চাকরি, তার ৬০৭০এর দশকএসব ইতিহাসের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে, এগুলো জানতে হলে পাঠক নির্দ্বিধায় অন্য কোনো প্রবন্ধ খুঁজতে পারেন।

আমার কাছে যা গুরুত্বপূর্ণ, তা হলো নবারুণ সমস্যায় ফেলে গেলেন, আঙ্গুলে গোনা কয়েকটি মগজ যার সাথে দৃঢ় মেরুদণ্ডের সম্পর্ক আছে, তার একটির অধিকারী ছিলেন তিনি নবারুণ চলে যাওয়াতে একটা কমে গেল। যা অপূরণীয় ক্ষতি। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

Holding_Handsআমাদের চঞ্চল পদচারনায়

বিষণ্ন ফুটপাথ জেগে উঠেছিল!

যদিও আগামী কাল

আমাদের কারখানায়

অবহেলায় কেউ টাঙিয়ে দিয়ে যাবে (বিস্তারিত…)


লিখেছেন:সৌম্য মণ্ডল

sex-educationঅন্তত ভারতীয় উপমহাদেশে যৌনতা খুবই স্পর্শকাতর বিষয়, যৌনতা বিষয়ে প্রকাশ্যে স্বাভাবিক স্বরে কথা বলা ‘অসভ্যতা’ সামিল। অথচ এই দেশেই কোনো নতুন সংবাদপত্র বাজারে এলে তাকে সেলিব্রেটিদের কেচ্ছা, কেলেঙ্কারী, যৌনতা সংক্রান্ত রগরগে কিছু পাতা রাখতেই হয়, নতুন বাজার ধরার স্বার্থে। আমের রস থেকে ছেলেদের সেভিং ক্রিম (যার সাথে মেয়েদের কোনো সম্পর্ক নেই!) সবেতেই নারী দেহ, যৌনতার উপস্থিতি। আর গাধার নাকের ডগায় মূলো ঝুলানোর মতো,নাকের ডগায় নারী দেহ ঝুলিয়ে ভোগবাদের ভূবনে ক্রেতাকে ছুটিয়ে বেড়ানোর যে বানিজ্যিক প্রথা, তাকে জনতা মনেহয় খুব স্বাভাবিক হিসেবে ধরে নিয়েছে। তাই কথিত মূল স্রোতের রাজনৈতিক দলগুলো এর বিরুদ্ধে কোনো প্রতিবাদ প্রতিরোধের প্রয়োজন মনে করেনি কখনো। ফেলো করি মাখো তেল। সরষে হোক বা জাপানি। পুঁজিবাদ সব কিছুকে বাজারের কেনাবেচার সামগ্রীতে পরিণত করেজল থেকে যৌনতা, সব কিছু টাকার বিনিময়ে কেনা। লুকিয়ে যৌনতা কেনা। স্বাভাবিক মানবিক সম্পর্ক যখন পন্যের রূপ ধারণ করে, তখন তা আর মানবিক থাকেনা। অমানবিক হয়ে ওঠে, হয়ে ওঠে বিকৃত। প্রকাশ্য বাজার থেকে লুকিয়ে চুরিয়ে বিকৃত যৌনতা কেনা যাবে। কিন্তু যৌনতা নিয়ে প্রকাশ্যে আলোচনা করা মহা পাপ! (বিস্তারিত…)


 

লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

NOTA_Indiaপ্রত্যেক কমিউনিস্ট মাত্রই জানে যে ভোট হলো কৌশল মাত্র, তাই প্রত্যেকবারের ভোটের মতো এইবার ১৬ তম লোকসভা ভোটেও কৌশলের ছড়াছড়ি। জ্ঞানীগুণীবিজ্ঞ ‘কমিউনিস্ট’ নেতারা বুদ্ধিদৃপ্ত কায়দায় প্রত্যেক ভোটে কৌশলের খেল খেলে যান, যেন বিরাট কিছু একটা হয়ে যাচ্ছে। তবে কৌশলটা যে কি, সেটা সবারই জানা, তথাকথিত মূল ধারার বাম দলগুলো সারা বছর মুখে পুঁজিবাদের বাপ বাপান্ত করে ছাড়লেও (অবশ্য পশ্চিমবঙ্গ, কেরলার মতো যেখানে তারা ক্ষমতায় ছিল বা আছে, সেখানে বিদেশি পুঁজিতো প্রগতিশীল, তার ফিরিস্তি দেওয়া হয়), সব দক্ষিনপন্থী দলগুলোর সাথে সমদূরত্ব বজায় রাখার কথা বললেও, বাম = প্রগতিশীল, শিক্ষিত, সংস্কৃতিবান; এরকম একটা হাবভাব এর মাধ্যমে একটা লেফট ব্র্যান্ড তৈরী করে, নিচুতলায় আন্দোলন শক্তিশালী করার স্বার্থে সংগ্রামী বাম সংগঠনগুলোর সাথে ঐক্য তৈরী করার ব্যাপারে নাক সিট্কালেও ভোটে এর ঠিক আগে সাধের ‘বৃহৎ বাম ঐক্যের’ কথা ভুলে গিয়ে এই কথিত কমিউনিস্ট সংগঠনগুলো দক্ষিনপন্থী দলগুলোরই হাত ধরে, কখনো আরজেডি, কখনো মুলায়াম, কখনো জয়ললিতা। (বিস্তারিত…)