Posts Tagged ‘সমাজ বাস্তবতা’


লিখেছেন: ফারুক আহমেদ

lalon-1111এখনও পর্যন্ত সমাজ বাস্তবতা হলো এই যে, অভিজাতের আঙ্গিনায় ঘুরাঘুরি না করলে শিক্ষিত পদবাচ্যে ভূষিত হওয়া যায় না। গ্রামের কৃষিজীবীপেশাজীবী মানুষ, অভিজাতেরা যাঁদেরকে “লোক” বলে অভিহিত করে থাকেন তাঁদের মধ্য থেকে কারো শিক্ষিতের স্বীকৃতি পেতে চাইলে তাঁকে অবশ্যই অভিজাতের আঙ্গিনায় আসতে হবে। এখনও পর্যন্ত শিক্ষিত পদবাচ্যের স্বীকৃতি দানের মালিক অভিজাতেরা। “লোক” মানুষ যত জ্ঞান চর্চাই করুণ না কেন, হোক সেটা দর্শন কিংবা হোক সেটা বিজ্ঞান অথবা হোক সেটা সমাজ ভাবনা –সেই মানুষ যদি অভিজাতের আঙ্গিনায় না আসেন তবে তিনি আর যাই হোক শিক্ষিতের স্বীকৃতি পাবেন না। এখনও পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সবচেয়ে বিবর্ণ রূপটারও তত্ত্বাবধায়ক অভিজাত শ্রেণি। ধর্ম শিক্ষার নামে মানব মস্তিষ্কের ওপর যে নির্মম পেষণ তা বরাবরই অভিজাতের হাতে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাতো বটেই এর বাইরে যাঁরা স্বশিক্ষিত রূপে পরিচয় পেয়েছেন তাঁদেরকেও সে পরিচয়টুকু অভিজাতের আঙ্গিনা থেকেই সংগ্রহ করতে হয়েছে। তাঁদের আঙ্গিনার বাইরে কোন শিক্ষা থাকতে পারে তা অভিজাতরা কখনোই মানতে পারেন না। (বিস্তারিত…)

Advertisements

লিখেছেন: খোন্দকার সোহেল

রোদ-বৃষ্টি সয়ে টেনে যায় রিকশাওয়ালা, আর তাতে বসে দুই মিনিটের সাহেব-মেম'রা...রিকশায় করে বাসায় ফিরছিলাম। সাথে ল্যাপটপ এবং ক্যামেরার ব্যাগ। সারাদিন কাজের ঝক্কি ঝামেলায় এমনিতেই মন মেজাজের উড়াল চন্ডি দশা। তাই মনমেজাজটা ভাল ছিল না। সিগারেটের প্যাকেট বের করে পকেটে আর দিয়াশলাই খুঁজে পাচ্ছিলাম না। রিকশাওয়ালাকে জিজ্ঞাস করলাম

তোমার কাছে দিয়াশলাই আছে?

রিকশা চালাতে চালাতেই পিছু ফিরে তাকিয়ে হাসতে হাসতে বলল

আছে স্যার। এই নেন।

দিয়াশলাই নিয়া সিগারেট ধরিয়ে দেখলাম তখনও রিকশাওয়ালা আমার দিকেই তাকিয়ে হাসছে। বললাম

হাসছ কেন?

স্যার আমনের ব্যাগের মধ্যে কি কম্পুটার?

হুম, কেন?

আইজ একটা ছ্যারা মোর রিকশায় বইয়া ক্যারে জানি খালি কইতাছে “ফেবু” আর “স্টেটেস” এর কতা। স্যার এইগুলা কি? (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: অবিনাশ রায়

উত্তপ্ত কালো পথ, ধূলি মাখা টায়ারের ছাপ,

ধোঁয়া মিশ্রিত ধূসর, রঙহীন বায়ু।

ছায়ায় ঠান্ডা বাতাস, কোনোটা নিকোটিন মিশ্রিত,

কোনোটা বা কার্বনের পোড়া যৌগ।

মৃত্যু অবধারিত, জীবন আবর্তিত, মন চলমান অস্থির;

সুস্থির মটর গাড়ির চালক, দৃষ্টি নিবদ্ধ পথে,

অদ্ভুত একাগ্রতা!

তবু সে দেখেনি অনেক কিছু,

হয়তোবা সারা বিশ্বই চোখের আড়ালে চলে গেছে,পথটুকু বাদে;

হয়তোবা পথও দৃষ্টি গোচরে নয়।

স্থিরতার সন্দেহে উদ্বিগ্ন, স্থগিত কে?

এখানে মৃতু অবধারিত, সত্য এখানে প্রকাশ্যে সদ্য,

অন্ধ সকলে অদ্য –

যদি আবারো পড়তে হয় রাত্রিতে সানগ্লাস;

সকলে বধিরতার বার্ধক্যে বদ্ধ –

যদি আবারো কানে চুম্বনে হেডফোন। (বিস্তারিত…)