Posts Tagged ‘রাষ্ট্র’


লিখেছেন: ফারুক আহমেদ

toba-group-workers-5ঈদের আগের দিন থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারী এবং আবাস থেকে উচ্ছ্বেদ হওয়া শ্রমিকরা তাদের কর্মস্থলে এসে জড়ো হন। পোষাক নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান তোবা গ্রুপের ৫টি কারখানার ১৬০০ শ্রমিককে তিনমাস ধরে বেতন দেওয়া হয়নি। শ্রমিকদের যে বেতন দেওয়া হয়, তাতে নিয়মিত বেতন পেলেও পরিবার পরিজন নিয়ে তাঁদের মান সম্পন্ন খাবার এবং আবাস জোটে না। কষ্ট করে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে থেকে শুধুমাত্র জীবন ধারণের জন্য খাবার খেয়ে কোন রকমে তাঁরা জীবনটাকে চালিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। বেতন বন্ধ হলে স্বাভাবিকভাবেই তাঁদের উপোস থাকতে হয়। (বিস্তারিত…)

Advertisements

লিখেছেন: ফারুক আহমেদ

toba-group-workersতোবা ফ্যাশনে প্রায় দেড় হাজার শ্রমিককে তিন মাস ধরে বেতন দেওয়া হচ্ছে না। এমন নয় যে, এই তিন মাস ফ্যাক্টরি বন্ধ ছিল। পুরোদমে ফ্যাক্টরি চালু ছিল। বিশ্বকাপের জার্সি নির্মাণ সহ সকল ধরণের কাজই সেখানে হয়েছে। অথচ শ্রমিকদের বেতন দেওয়া হয় নাই। এই তোবা ফ্যাশনের মালিকই তাজরিণ গার্মেন্টের মালিক। যেখানে এই মালিকের অবহেলার কারণে আগুনে পুড়ে শতাধিক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছিল। সেই মামলার দায়ে মালিক দেলোয়ার হোসেন জেলে। শ্রমিকদের বেতন না দেওয়ার পিছনে মালিকের জেলে থাকাকে অজুহাত হিসেবে দেখানো হচ্ছে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: মতিন বৈরাগী

art-22জঙ্গল কেটে চাষ যোগ্য করেছিলাম একদিন ওই জমিটা

এখন আমাদের আর নেই দখল হয়ে গেছে

আমরা হয়েছি ক্ষেত মজুর শ্রম বেচি আর চেয়ে চেয়ে দেখি

খুব গোপনে, কারণ তোমাদের পাহাড়া আছে

সান্ত্রিসেপাই আছে আইন আর আদালত আছে

আমাদের আছে কেবল একটা ভোট (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: শাহ্জাহান সরকার

সর্বহারার প্রতীক...ধর্ম ও রাষ্ট্রের মধ্যেকার সম্পর্ক নিয়ে আজকাল কিছু লেখা মানুষকে বিজ্ঞান মনস্ক ভাবনার দিকে যেমন উদ্বুদ্ধ করেছে। অপরদিকে মানব জাতির ইতিহাসকে ধর্মনিরপেক্ষতার নানা রকম কর্তৃত্ববাদের ফলাফল হিসেবে আলোচনা মধ্যে সীমাবদ্ধ করে নানা তথ্যউপাত্ত দ্বারা ধর্ম ও আধুনিক রাষ্ট্রের মধ্যেকার বিরোধ নিস্পত্তি করার ফরমায়েসি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ধর্ম সংক্রান্ত প্রকৃত বৈজ্ঞানিক ধারণাকে প্রতিষ্ঠিত না করে এবং বিভিন্ন শ্রেণী রাষ্ট্রের উৎপত্তির সাথে ধর্ম ও সমাজ এবং রাষ্ট্র ও ধর্মের মধ্যেকার বিরোধগুলির ঐতিহাসিক মর্মার্থ ব্যাখ্যা না করে ধর্মনিরপেক্ষতার বাহ্যিক কতগুলি লক্ষণকে এ সংক্রান্ত গবেষণার কেন্দ্রবিন্দু করে ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে সঠিক সিদ্ধান্তে পৌঁছার ইচ্ছা যেমন সস্তা তেমনি তা ইউটোপীয় বটে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: মনজুরুল হক

tea-workers-7ব্রিটিশরা তখন রেল বসাচ্ছে। বাংলার পলিমাটিতে রেল বসাচ্ছে কারণ এখানে পাকাসড়ক রেলের চেয়েও ব্যয়সাপেক্ষ। রেল লাইন নিঃসন্দেহে এক যুগান্তকারী সংযোজন। বাংলারচাষাভূষোরা সার সার দাঁড়িয়ে রেল বসানো দেখে। সেই কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের অধিকাংশই বাংলার বাইরে থেকে আনা হয়। প্রধানত বিহার, মধ্যপ্রদেশ, উড়িস্যা এবং অন্ধ্রপদেশ থেকে এই শ্রমিকদের আনা হয়। রেল বসানো শেষ হলে সেই শ্রমিকদের একটা বড় অংশ দেশে নাফিরে এই বাংলাতেই থেকে যায়। আরও কিছু পরে সেই শ্রমিকদের সাথে আরো ‘বাইরের’ শ্রমিক এনে পাঠিয়ে দেয় হয় সিলেটঅসম অঞ্চলে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: বন্ধু বাংলা

ভূমিকা

yunus-2সাভারে শ্রমিক গণহত্যায় সুদূর ভ্যাটিকান সিটির পোপ থেকে শুরু করে দেশের সরকার, সুদখোর ইউনুস, মালিক শ্রেণী সবাই যেন নড়েচড়ে বসেছে, মন্তব্যের ফুলঝুরি নিয়ে হাজির হচ্ছে। অন্যদিকে সাভারের ভবন ধ্বসের শোকাবহ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই গত ১৩২০১৩ তারিখে মন্ত্রীসভার বৈঠকে “বাংলাদেশ শ্রম আইন (সংশোধন), ২০১৩” এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে যা আসলে শ্রম বান্ধব কোন নীতি নয় বরং চূড়ান্ত বিচারে শ্রমিক বিরোধী।এছাড়া ১২২০১৩ তারিখে সরকার একটি ন্যূনতম মজুরি বোর্ড গঠন করে। যেহেতু উৎপাদনের সাথে আমাদের সবার সরাসরি সংশ্লিষ্টতা নাই, তাই আপাত দৃষ্টিতে এসমস্ত পদক্ষেপকে আমরা ইতিবাচক ধরে নেই এবং রাষ্ট্রকে গনরাষ্ট্রের আয়নায় দেখতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ি। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: মনজুরুল হক

savar-disaster-12টানা ২১ দিন উদ্ধার কাজ চালানোর পর উদ্ধারকর্মীরা আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কাজ শেষ করলেন। সেনাবাহিনী, ফায়ার ফাইটার, সিভেল ডিফেন্স এবং সাধারণ মানুষের সম্মিলিত যে দলটি উদ্ধার কাজ চালাচ্ছিল তার সঠিক সংখ্যা আমরা জানিনা। সত্যি কথা বলতে কি কেউই জানেন না। কারণ প্রতিদিনই রানা প্লাজার ধ্বংসাবশেষ থেকে জীবিত বা মৃত শ্রমিকদের উদ্ধার কাজে নতুন নতুন মানুষ যোগ দিয়েছিলেন। যারা প্রথম দিকে কাজ শুরু করেছিলেন তারা কেউ কেউ সরে গেলেও সেখানে আরও নতুন কর্মী যোগ দিয়েছিল। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: শাহ্জাহান সরকার

savarসাভারের রানা প্লাজায় গার্মেন্টশিল্পের বিল্ডিং ধ্বসে যে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে একে ট্র্যাজেডি বলতে মুখে আমার ভীষণ বাধছে। এই মর্মন্তুক শ্রমিককর্মচারী হত্যাকাণ্ড হচ্ছে বিশ্বাসঘাতক বড় মালিক শ্রেণীর রাষ্ট্র ব্যবস্থা ও সরকারের শ্রমিক শ্রেণীর ওপর চাপিয়ে দেয়া অঘোষিত অন্যায় যুদ্ধ। এই অঘোষিত অন্যায় যুদ্ধের শিকার হচ্ছে হাজার হাজার শ্রমিক নরনারী। হত্যাকাণ্ড ঘটে যাবার পর আমরা প্রতিবাদে সরব হই। মাস না পুরোতেই আমরা ভুলে যাই নিরবে শহীদ হয়ে যাওয়া আমাদের শ্রমিক ভাইবোনদের আত্মহুতিকে। আত্মশ্লাঘায় আবার জেগে উঠি যখন আর একটি নিরব গণহত্যা সংঘটিত হয়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: বন্ধু বাংলা

yunus-2সাভারে শ্রমিক গণহত্যায় সুদূর ভ্যাটিকান সিটির পোপ থেকে শুরু করে দেশের সরকার, সুদখোর ইউনুস, মালিক শ্রেণী সবাই যেন নড়েচড়ে বসেছে, মন্তব্যের ফুলঝুরি নিয়ে হাজির হচ্ছেন। গত কয়েক দিনে গন মাধ্যমে প্রকাশিত সুদী কারবারি ইউনুসের সাম্প্রতিক একটি লেখা ও রাষ্ট্রের নতুন শ্রম আইন ও মুজুরি বোর্ড গঠনের বেশ কয়েকটি সংবাদ বিশ্লেষণ করতে গিয়েই এ লেখার অবতারণা। (বিস্তারিত…)


revolutionary-force-2গতকাল, ১০ মে ২০১৩ তারিখে মঙ্গলধ্বনি সম্পাদনা পর্ষদের আমন্ত্রণে “সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্র”এ মঙ্গলধ্বনি’র লেখকপাঠকশুভানুধ্যায়ীদের এক সম্মিলন ঘটে। নবীণপ্রবীণ, লেখককবিপাঠকের সমন্বয়ের ফলে সভাটি হয়ে উঠে বহুমাত্রিক। সভায় উপস্থিত সদস্যদের মাঝে রাষ্ট্র, সমাজ, সংস্কৃতি, রাজনীতি নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে প্রাণখোলা আলোচনা হয়। সেই সাথে এ থেকে উত্তরণের পথ এবং সেখানে লেখকদের ভূমিকা নিয়েও মতবিনিময় হয়। (বিস্তারিত…)