Posts Tagged ‘মালিক শ্রেণী’


লিখেছেন: ফারুক আহমেদ

toba-group-workersতোবা ফ্যাশনে প্রায় দেড় হাজার শ্রমিককে তিন মাস ধরে বেতন দেওয়া হচ্ছে না। এমন নয় যে, এই তিন মাস ফ্যাক্টরি বন্ধ ছিল। পুরোদমে ফ্যাক্টরি চালু ছিল। বিশ্বকাপের জার্সি নির্মাণ সহ সকল ধরণের কাজই সেখানে হয়েছে। অথচ শ্রমিকদের বেতন দেওয়া হয় নাই। এই তোবা ফ্যাশনের মালিকই তাজরিণ গার্মেন্টের মালিক। যেখানে এই মালিকের অবহেলার কারণে আগুনে পুড়ে শতাধিক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছিল। সেই মামলার দায়ে মালিক দেলোয়ার হোসেন জেলে। শ্রমিকদের বেতন না দেওয়ার পিছনে মালিকের জেলে থাকাকে অজুহাত হিসেবে দেখানো হচ্ছে। (বিস্তারিত…)

Advertisements

mongoldhoni-cover-1আপনাদের ছোটকাগজ ‘মঙ্গলধ্বনি’ পড়ছি। একবার পড়েছি। আরো পড়তে হবে, মানে সংগ্রহে রাখতে হবে। অনেক দরকারি কাজ হয়েছে। এ্ইভাবে কাজ তো তেমন হয় না। তাই প্রথমেই যারপরনাই প্রীতি জানায়। প্রাণপ্রকৃতিপ্রতিবেশের বিষয়সমূহ ভালোই আছে। এতে একধরনের মিশ্রণ হয়েছে। একেবারে রাজনীতির কাগজও নয়, কেবল নৈতিকতা আছে তাও নয়। আবার দেখা গেল, দুইতিনটা কবিতা বিনে সাহিত্যের আর কিছু নাই। ফলে এর শিল্পসংস্কৃতির চরিত্রটা নির্ণয় করা গেল না। (বিস্তারিত…)

প্রকাশিত হলো মঙ্গলধ্বনির ৩য় সংখ্যা…

Posted: নভেম্বর 3, 2013 in অর্থনীতি, আন্তর্জাতিক, দেশ, প্রকৃতি-পরিবেশ, মতাদর্শ, মন্তব্য প্রতিবেদন, সাহিত্য-সংস্কৃতি
ট্যাগসমূহ:, , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,

 Mongoldhoni-logo-1

মেষ শাবককে খাবার জন্যে নেকড়ের কোনো যুক্তির প্রয়োজন হয় না। কিন্তু চিঁ চিঁ ধ্বনির প্রতিবাদ নেকড়েকে প্রতিহত করতে পারে না। নেকড়েকে রুখতে হলে আকাশ বির্দীণ করা চিৎকার করতে হবে। তেমন চিৎকার একক কন্ঠে সম্ভব নয় সম্মিলিত কন্ঠে প্রবল শক্তির নির্ঘোষে হতে হবে। সেই শক্তির আবাহনের কর্তব্যবোধে ‘মঙ্গলধ্বনি’র সকল আয়োজন। জগতে একা একা কিছুই হয় না একটা কুটোও নড়ানো যায় না। তবু একা চলার সাহস দেখাতেই হবে। যে প্রথম সামনে এগোয় সে অন্যকে উৎসাহিত করে, অনুপ্রাণিত করে। একা ব্যক্তির এই ভূমিকা প্রশংসার, শ্রদ্ধার। ‘মঙ্গলধ্বনি’ প্রশংসা ও শ্রদ্ধার চেয়ে অধিক প্রত্যাশা করে সহযোগিতা ও সহমর্মিতা। আর একত্রিত হয়ে আকাশ বিদীর্ণ করা চিৎকার দেবার শক্তি হয়ে ওঠার। সে শক্তি নেকড়েদের কেবল রুখবেই না চিরতরে মানব সমাজ থেকে নিশ্চিহ্ন করে দেবে। নেকড়ে ও মানুষ এক সমাজে বাস করতে পারে না। (বিস্তারিত…)


savar-disaster-15ভবনের ভেতর কি করার আছে হতদরিদ্র এই মানুষের

ভবনের ভেতর কি করার আছে হতদরিদ্র এই মানুষের

নিষাদ বংশীয় অনার্য এই মানুষগুলো কি করবে বাংলাদেশে

তাদের জীবন শ্রমের মাঝে বন্দী, নির্দেশ পালনে সন্ত্রস্ত

কর্পোরেট বিদ্ধ এই জীবন নিয়ে কি করবে তারা (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: বন্ধু বাংলা

ভূমিকা

yunus-2সাভারে শ্রমিক গণহত্যায় সুদূর ভ্যাটিকান সিটির পোপ থেকে শুরু করে দেশের সরকার, সুদখোর ইউনুস, মালিক শ্রেণী সবাই যেন নড়েচড়ে বসেছে, মন্তব্যের ফুলঝুরি নিয়ে হাজির হচ্ছে। অন্যদিকে সাভারের ভবন ধ্বসের শোকাবহ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই গত ১৩২০১৩ তারিখে মন্ত্রীসভার বৈঠকে “বাংলাদেশ শ্রম আইন (সংশোধন), ২০১৩” এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে যা আসলে শ্রম বান্ধব কোন নীতি নয় বরং চূড়ান্ত বিচারে শ্রমিক বিরোধী।এছাড়া ১২২০১৩ তারিখে সরকার একটি ন্যূনতম মজুরি বোর্ড গঠন করে। যেহেতু উৎপাদনের সাথে আমাদের সবার সরাসরি সংশ্লিষ্টতা নাই, তাই আপাত দৃষ্টিতে এসমস্ত পদক্ষেপকে আমরা ইতিবাচক ধরে নেই এবং রাষ্ট্রকে গনরাষ্ট্রের আয়নায় দেখতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ি। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: মনজুরুল হক

savar-disaster-12টানা ২১ দিন উদ্ধার কাজ চালানোর পর উদ্ধারকর্মীরা আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কাজ শেষ করলেন। সেনাবাহিনী, ফায়ার ফাইটার, সিভেল ডিফেন্স এবং সাধারণ মানুষের সম্মিলিত যে দলটি উদ্ধার কাজ চালাচ্ছিল তার সঠিক সংখ্যা আমরা জানিনা। সত্যি কথা বলতে কি কেউই জানেন না। কারণ প্রতিদিনই রানা প্লাজার ধ্বংসাবশেষ থেকে জীবিত বা মৃত শ্রমিকদের উদ্ধার কাজে নতুন নতুন মানুষ যোগ দিয়েছিলেন। যারা প্রথম দিকে কাজ শুরু করেছিলেন তারা কেউ কেউ সরে গেলেও সেখানে আরও নতুন কর্মী যোগ দিয়েছিল। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: শাহ্জাহান সরকার

savarসাভারের রানা প্লাজায় গার্মেন্টশিল্পের বিল্ডিং ধ্বসে যে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে একে ট্র্যাজেডি বলতে মুখে আমার ভীষণ বাধছে। এই মর্মন্তুক শ্রমিককর্মচারী হত্যাকাণ্ড হচ্ছে বিশ্বাসঘাতক বড় মালিক শ্রেণীর রাষ্ট্র ব্যবস্থা ও সরকারের শ্রমিক শ্রেণীর ওপর চাপিয়ে দেয়া অঘোষিত অন্যায় যুদ্ধ। এই অঘোষিত অন্যায় যুদ্ধের শিকার হচ্ছে হাজার হাজার শ্রমিক নরনারী। হত্যাকাণ্ড ঘটে যাবার পর আমরা প্রতিবাদে সরব হই। মাস না পুরোতেই আমরা ভুলে যাই নিরবে শহীদ হয়ে যাওয়া আমাদের শ্রমিক ভাইবোনদের আত্মহুতিকে। আত্মশ্লাঘায় আবার জেগে উঠি যখন আর একটি নিরব গণহত্যা সংঘটিত হয়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: বন্ধু বাংলা

yunus-2সাভারে শ্রমিক গণহত্যায় সুদূর ভ্যাটিকান সিটির পোপ থেকে শুরু করে দেশের সরকার, সুদখোর ইউনুস, মালিক শ্রেণী সবাই যেন নড়েচড়ে বসেছে, মন্তব্যের ফুলঝুরি নিয়ে হাজির হচ্ছেন। গত কয়েক দিনে গন মাধ্যমে প্রকাশিত সুদী কারবারি ইউনুসের সাম্প্রতিক একটি লেখা ও রাষ্ট্রের নতুন শ্রম আইন ও মুজুরি বোর্ড গঠনের বেশ কয়েকটি সংবাদ বিশ্লেষণ করতে গিয়েই এ লেখার অবতারণা। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: প্রশান্ত মাহমুদ

savar-disaster-12আবারো লাশের মিছিল। গত ২৪ নভেম্বর তাজরীন গার্মেন্টসে শত শত শ্রমিক পুড়ে অঙ্গার হওয়ার ঠিক ৫ মাসের মাথায় গত ২৪ এপ্রিল বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্পের ইতিহাসে ভয়াবহতম ঘটনায় ভবন ধ্বসে পড়ে জীবন্ত কবর হলেন সাভারের রানা প্লাজার পাঁচটি গার্মেন্টেসের হাজারো শ্রমিক। এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা লাশের সংখ্যা ৩৯৮। অবিরাম, অবিশ্রান্ত উঠে আসছে লাশ। জানিনা, এই লেখা শেষ করতে করতে এই লাশের সংখ্যা কততে গিয়ে ঠেকবে। (বিস্তারিত…)

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :: শাহবাগে সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠনের বিক্ষোভ সমাবেশ

Posted: ডিসেম্বর 9, 2012 in দেশ
ট্যাগসমূহ:, , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,

propod-logo

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

শাহবাগে সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠনের বিক্ষোভ সমাবেশ

তাজরিন ফ্যাশনে অগ্নিকান্ডে নিহত, নিখোঁজ ও আহত শ্রমিকদের ঠিকানাসহ তালিকা প্রকাশ এবং প্রত্যেক নিহতদের পরিবারের জন্য ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের দাবি

গত ২৪ নভেম্বর আশুলিয়ার তাজরিন ফ্যাশনে অগ্নিকান্ডে শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে আজ বিকাল ৪.৩০ টার সময় রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করে কয়েকটি প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠন।

জাগরণের পাঠশালা, প্রপদ, ছাত্র গণমঞ্চ, বিপ্লবী ছাত্রযুব আন্দোলন, গণমুক্তির গানের দল, মার্কসবাদের প্রথম পাঠ, শহীদ রফিক স্মৃতি পাঠাগার, মঙ্গলধ্বনি, বিজ্ঞানচেতনা পরিষদ, ল্যাম্পপোস্ট, শহীদ বিপ্লবী ও দেশপ্রেমিক স্মৃতি সংসদ এবং প্রগতিশীল ব্যক্তিবর্গের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গণসংস্কৃতি পরিষদের সভাপতি ম. নুরুন্নবী। (বিস্তারিত…)