Posts Tagged ‘কার্ল মার্ক্স’


লিখেছেন: সব্যসাচী গোস্বামী

The philosophers have always interpreted the world in various ways; the point, however, is to change it. (Marx, Theses On Feuerbach: Thesis 11, 1845) 

এক.

যে কোনো মতাদর্শ কিংবা দার্শনিক তত্ত্বেরই একটা বস্তুগত ভিত্তি থাকে। যে কোনো নির্দিষ্ট দেশকালের নিরিখে, নির্দিষ্ট আর্থসামাজিক ব্যবস্থার মধ্য থেকেই একেকটা মতাদর্শ জন্ম নেয়। সমাজে নতুন বস্তুগত পরিস্থিতি নতুন ধারণা এবং তত্ত্বের জন্ম দেয়। এটাই মার্ক্সবাদের শিক্ষা। মার্ক্সবাদের নিজের ক্ষেত্রেও একথা প্রযোজ্য। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সব্যসাচী গোস্বামী

naxal-movement-321আজকের পৃথিবীতে সকল সংস্কৃতি, সকল সাহিত্য ও সকল শিল্পই বিশেষ শ্রেণীর সম্পত্তি এবং বিশেষ রাজনৈতিক লাইন প্রচার করাই তার কাজ। শিল্পের জন্য শিল্প, শ্রেণী স্বার্থের ঊর্ধ্বে অবস্থিত বা রাজনীতির সাথে সম্পর্কহীন ও স্বাধীন শিল্প বলে আসলে কিছুই নেই। প্রলেতারীয় সাহিত্য ও শিল্প হচ্ছে সমগ্র প্রলেতারীয় বিপ্লবী লক্ষ্যেরই একটি অংশ; লেনিনের ভাষায় তা হচ্ছে বিপ্লবী যন্ত্রেরই দাঁত এবং চাকা। (শিল্প ও সাহিত্য প্রসঙ্গে মাওয়ের ইয়েনানে প্রদত্ত ভাষণ থেকে গৃহিত) (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: অজয় রায়

Communist_International-098একশো পঞ্চাশ বছর পূর্তী হয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ওয়ার্কিং মেনস অ্যাসোসিয়েশনের (আইডব্লিউএমএ), যা প্রথম আন্তর্জাতিক হিসাবেও পরিচিত। ১৮৬৪ সালে লন্ডনে কার্ল মার্কসের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় শ্রমিক শ্রেণীর এই সংগঠন।[] যা ইউরোপের বিভিন্ন প্রান্তে সংঘটিত শ্রমিক আন্দোলনগুলির সমন্বয় সাধন করে। শ্রমিকধর্মঘটে সমর্থন যোগায় এবং ফ্রান্সপ্রুশিয়া যুদ্ধের সময়ে যুদ্ধবিরোধী প্রচার চালায়। আর শ্রমিক শ্রেণীর আন্তর্জাতিক সংহতি ও সমাজবাদের আদর্শের প্রসারে ভূমিকা নেয়। এর মধ্যেই ১৮৭১ সালে প্যারি কমিউনের মাধ্যমে সর্বহারার প্রথম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার চেষ্টা হয়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: নেসার আহমেদ

cht-movementপার্বত্য চট্টগ্রামে এখন সামরিকায়নের মাত্রা বেড়েই চলেছে। প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো গ্রামের জনগোষ্টিকে উচ্ছেদ করে সামরিক ক্যাম্প বসানোর সংবাদ আসছে। আতঙ্কে ভুগছেন তারা। জনগোষ্টি হিসাবে তাদের পরিচয় হলো তারা পাহাড়ি জাতিসত্তার মানুষ। বেড়ে গেছে সেটেলার কতৃক পাহাড়ি জাতিসত্তার মানুষের ওপর নিপীড়ন। নারী নিপীড়নের হার। যার মধ্যে ধর্ষণ অন্যতম। পাহাড়ি জাতিসত্তার শিশুরাও রেহাই পাচ্ছেন না, সেই আগ্রসন থেকে। বাড়ছে সেটেলারদের সংখ্যা। রাষ্ট্রের প্রত্যক্ষ মদদে। আইন তার খোলস ছেড়ে বেরিয়েছি। যা নিপীড়িত পাহাড়ি জনগোষ্টি প্রশ্নে নির্বিকার। বরং ক্ষেত্র বিশেষ প্রতিবাদী পাহাড়ি নেতৃত্বকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। (বিস্তারিত…)