Posts Tagged ‘আলোচনা সভা’


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দমনমূলক আইনী সংস্কার :: গণ অধিকারের প্রশ্ন

shova-1আজ ০৫ অক্টোবর ২০১৩, গণঅধিকার সংগ্রাম কমিটি’র উদ্যোগে পরীবাগে সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্রে “দমনমূলক আইনী সংস্কার : গণ অধিকারের প্রশ্ন” শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অরিন্দম হিজল (সদস্য, দাবানল), উপস্থাপনা করেন রিয়াদ (সদস্য, শ্রমজীবি সংঘ)। সভায় বক্তব্য রাখেন হাসনাত কাইয়ুম (হাইকোর্টের আইনজীবি; আহবায়ক, গণতান্ত্রিক আইন ও সংবিধান আন্দোলন), . নুরুন্নবী (সভাপতি, গণসংস্কৃতি পরিষদ), এহতেশাম উদ্দিন (যুগ্ম আহবায়ক, জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ) প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা আইনী সংস্কারের মাধ্যমে ক্রমাগত গণনিপীড়ন বৃদ্ধির বিষয়টি তুলে ধরেন। সভায় বক্তারা সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী, সন্ত্রাস বিরোধী আইন, শিক্ষা আইন, শ্রম আইন, তথ্য প্রযুক্তি আইন নিয়ে আলোচনা করেন। (বিস্তারিত…)


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ticfa-1আজ, শুক্রবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৩, ডাকসু ভবনের দ্বিতীয় তলায় ছাত্র গণমঞ্চের উদ্যোগে ‘টিকফা কেন জাতীয় দাসত্বের চুক্তি’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ছাত্র গণমঞ্চের যুগ্মআহ্বায়ক সুজিত সরকার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক সামিনা লুৎফা, প্রকৌশলী এবং তরুন বুদ্ধিজীবী কল্লোল মোস্তফা এবং জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চের আহ্বায়ক মাসুদ খান। সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্র গণমঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক শান্তনু সুমন। (বিস্তারিত…)


আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ নিয়ে নির্লজ্জ্ব ন্যাকামী করে লাভ নেই, হাজারো প্রশ্ন আপনার আমার দিকে ধেয়ে আসছে

লিখেছেন: আলবিরুনী প্রমিথ

কেউ নারী হিসাবে জন্মগ্রহন করেনা, নারী হিসাবে বেড়ে উঠে সিঁম দ্য ব্যুভুয়া

প্রতিবছরের ৮ মার্চ এলে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ নিয়ে পৃথিবীর সর্বত্রই নির্লজ্জ্ব প্রহসন শুরু হয়। কোথায় তা দেখা যায়না? সেটা সারাবিশ্বের উপরে ছড়ি ঘোরানো পরাক্রমাশালী আমেরিকাই বলুন কিংবা এখনো পাঁড় সামন্ততান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী এবং সমরূপ সামন্তীয় চিন্তার পুঁজ বয়ে বেড়ানো জনগণ সংবলিত বাংলাদেশই বলুন, সর্বত্রই চলে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ নিয়ে মেকি প্রহসন এবং নির্লজ্জ্ব চাঁপাবাজি। প্রতি বছর এই দিনে বিশ্বের সর্বত্র নানাবিধ সেমিনার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়, বিশের তাবৎ বাঘা বাঘা সব পন্ডিত সেখানে উপস্থিত থাকেন, তারা চর্বিত চর্বন করেন নারী ও তাদের সমধিকার নিয়ে, খরচ করেন দিস্তার পর দিস্তা কাগজ। কিন্তু বাস্তবে আমরা কি দেখে আসছি? বাস্তবে আমরা যা দেখে আসছি তা হলোতারা কেউই উপরিউক্ত বাক্যটির মর্ম আমাদের কাউকেই বুঝতে দিতে চাননা, সুকৌশলেই বাক্যটির মর্ম আমাদের প্রতিনিয়ত ভুলিয়ে দিতে চান।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের পটভূমির দিকে একটু তাকিয়ে দেখা যাক এবং তার সাথে পৃথিবীতে নারীপুরুষ বৈষম্যের উৎপত্তির দিকে তাকানো যাক:

১৮৫৭ সালে মজুরিবৈষম্য, কর্মঘন্টা নির্দিষ্ট করা, কাজের অমানবিক পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রাস্তায় নেমেছিলেন সুতা কারখানার নারী শ্রমিকরা। সেই মিছিলে চলে সরকারী লেঠেল বাহিনীর দমনপীড়ণ। ১৯০৮ সালে নিউইয়র্কের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত নারী সমাবেশে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিনের নেতৃত্বে প্রথম আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন হলো। (বিস্তারিত…)