Posts Tagged ‘আন্দোলন’


লিখেছেন: অজয় রায়

‘‘দাদা গো, আমরার জীবন বাঁচাইবার শেষ অবলম্বনটাও ভাইস্যা গেলো”, হাওরের এক কৃষক যেমন জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে। আগাম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাংলাদেশের হাওর অঞ্চলের সাতটি জেলা – কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া। এ অঞ্চলের প্রধান ফসল বোরো ধান নষ্ট হয়ে গেছে। বিষক্রিয়ায় বহু মাছ ও হাঁস মারা গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত অধিবাসীদের জন্য ত্রাণ সহায়তার অপ্রতুলতা নিয়েও অভিযোগ উঠছে। যখন বহু মানুষ একেবারে নিঃস্ব হয়ে গেছেন, তাদের অনেকে পরিবার নিয়ে বিভিন্ন শহরে চলে যাচ্ছেন কাজের সন্ধানে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: নীলিম বসু

ambedkar-marxএই উপমহাদেশের হাজার বছরের ইতিহাসে বর্ণব্যবস্থার বিরুদ্ধে সংগ্রামের ইতিহাসটাও অনেক পুরনো। চার্বাকদের ধ্বংস করেছিল ব্রাহ্মণ্যবাদীরা, চৈতণ্যের আন্দোলন, গৌতম বুদ্ধের ভাবধারাকে অঙ্গীভূত করে নেয় এই ব্রাহ্মণ্যবাদী ব্যবস্থা। ফুলে দম্পতি ও পেরিয়ারের সংগ্রাম এই ব্রাহ্মণ্যবাদী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা রাখে। মূলত পেরিয়ারের আন্দোলন দক্ষিণ ভারতে এক গভীর ও সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলে যায় ও ব্রাহ্মণ্যবাদী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে দ্রাবিড় আত্মমর্যাদার আত্মপ্রকাশে পেরিয়ারের সংগ্রাম ও ভাবধারার গুরুত্ব অস্বীকার করা কারো পক্ষেই সম্ভব নয়। তবে ব্রাহ্মণ্যবাদী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে ড. বাবাসাহেব আম্বেদকরের ভাবধারায় গড়ে ওঠা সংগ্রাম এই সমস্ত সংগ্রামগুলির মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং দলিত আন্দোলনের পরিসরে একটি মোড়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সব্যসাচী গোস্বামী

[কম. নির্মলদা (অজিতদা)-কে মনে রেখে]

.

world-to-winজেগে থাকে রুগ্ন গাছ, ক্ষয়ে যাওয়া চাঁদ

উপদ্রুত অঞ্চল, ত্রস্ত জনপদ

স্মৃতির এলবাম জুড়ে বিষণ্ন বিকেল

রাতঘুমে অনিবার্য ছন্দপতন। (বিস্তারিত…)


chotrodhor-1

(উৎসর্গ: ছত্রধর মাহাতো, সুখশান্তি বাস্কে, সাগর মুর্মু, শম্ভু সোরেন, রাজা সরখেল, প্রসূন চ্যাটার্জী)

লিখেছেন: সব্যসাচী গোস্বামী

এখনও তোরা ওদের বুকে কাঁপন ধরাস

তোদের জন্য বরাদ্দ তাই লোহার খাঁচা

এখনও মানুষ শপথ নিলো তোদেরই নামে

স্বপ্ন দেখার স্পর্দ্ধা নিয়ে প্রবল বাঁচার (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: অশোক চট্টোপাধ্যায়

kabir-suman-3শব্দগুলো আসলে বোমা কিম্বা বুলেট নয়, তারা বরং ছোট ছোট পুরস্কার, আর সেই পুরস্কারের একটা অর্থ ও তাৎপর্য থাকে। কথাগুলো ফিলিপ রথএর। শাসক যখন কাউকে কোনও পুরস্কার দেন, তখন তা নিছক সম্মান জানানোর জন্যে নয়, এর বাইরেও তার আর একটা নিগূঢ় অর্থ থেকে যায়। উনিশ শতকে ঔপনিবেশিক বাংলায় যখন ব্রিটিশ সরকার কাউকে রায়বাহাদুর, সিআইই, কেসিআইই প্রভৃতি খেতাব দিতেন তখন তা কি নিছক সম্মানজ্ঞাপক ছিল? কোনওনাকোনোভাবে রাজস্বার্থের সেবাপরায়নতার পুরস্কার ছিল এগুলি। যার জন্যে দেখা যায় পুরস্কার বা সম্মাননা সকলেই পাননা, কেউ কেউ পান। অনেক লেখক সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন, অনেকে যথেষ্ট যোগ্যতাসম্পন্ন হওয়া সত্ত্বেও পাননি। এই কেন পাননি প্রশ্নের উত্তর নিহিত থাকে একটি নির্দিষ্ট রাজনীতির মধ্যে। (বিস্তারিত…)


abstract-art-soul-wave-2

লিখেছেন: স্বপন মাঝি

ভেবনা, তোমরা একা;

অন্ধকারে।

মিথ্যের মায়াজালে তোমাদের আটকে

শাসকগোষ্ঠীর এ খেলা

নূতন কিছু নয়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: স্বপন মাঝি

abstract-art-painting-51রাষ্ট্রদ্রোহীরা সক্রিয় ছিল, আছে বলেই এখনো বাগানে ফুল ফোটে;

এখনো পাখীরা গান গাইবার পারে।

রাষ্ট্রদ্রোহী হয়েছিল বলেই,

মানুষ আদিম শিকল ছিড়ে বেরিয়ে আসতে পেরেছিল।

দ্রোহী হতে পেরেছিল বলেই,

দ্রোহের আগুনে এখনো রাজপথ মাতিয়ে রাখে। (বিস্তারিত…)


১৪ মার্চ ২০১৫, বেলা ১১টা,

কমরেড নির্মল সেন মিলনায়তন,

২৩/, তোপখানা, ঢাকা১০০০।

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ,

আমাদের সংগ্রামী শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন। আমরা এমন এক সময় আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি যখন দীর্ঘ ৬৮ দিন জুড়ে আওয়ামী ও বিএনপি জোটের সংঘাতহানাহানিতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিএনপি নেত্রীর গতকালের সংবাদ সম্মেলন এবং আওয়ামীলীগ নেতা মোহম্মদ হানিফের প্রতিক্রিয়া থেকে এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, এ দুই জোট যার যার অবস্থানে অনড় রয়েছে এবং এ গণবিরোধী রক্তাক্ত সংঘাত তারা চালিয়ে যেতে প্রস্তুত।

gn2আপনারা জানেন, এ পর্যন্ত আওয়ামী জোটের রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস এবং বিএনপিজামাত জোটের পেট্রোল বোমা সন্ত্রাসে ১২১ জন হত্যার শিকার হয়েছে। এসব সন্ত্রাসে হাজার হাজার মানুষ আহত এবং ১৩৭৫টি যানবাহন ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের শিকার হয়েছে। কেবল তাই নয়, অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে স্থবিরতা এবং যাতায়াতের সমস্যার কারণে শ্রমজীবী মানুষের কর্মহীনতা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। অবরোধের অজুহাতে কারখানা মালিকরা শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করছে না। কৃষিপণ্যের বাজারজাতকরণ বাধাগ্রস্থ হওয়ায় কৃষক উৎপাদন খরচটুকু পর্যন্ত ওঠাতে পারছেনা। এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ ৪ কোটি ৭৪ লাখ শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন আজ বিপর্যস্ত। সমগ্র অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে লক্ষ কোটি টাকা। সর্বোপরি গুম, ক্রস ফায়ার, গ্রেফতার বাণিজ্য, দলীয় নির্যাতন, পুলিশি নির্যাতন, পেট্রোল বোমা, ককটেল ইত্যাদির কারণে এক ত্রাসের রাজত্ব কায়েম হয়েছে। জনগণ আজ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: মিঠুন চাকমা

Bang Jeong Hwanকোরিয়ায় শিশু দিবস পালন করা হয় প্রতি বছরের মে মাসের ৫ তারিখ। এই শিশুদিবস পালনের ইতিহাসে রয়েছে শিশুপ্রিয় এক ব্যক্তির নাম। তার নাম বাঙ চোঙহোন ইংরেজিতে Bang Jeong-hwan। কোরিয়ার এই শিশুদিবস পালনের পেছনে রয়েছে লড়াইয়ের ইতিহাস, অধিকার পাবার জন্য হাঁসফাঁসের ইতিহাস।

কোরিয়া জাপানের কাছ থেকে পদানত হয় ১৯১০ সালে। তখন কোরিয়ায় দুর্যোগের কাল যাচ্ছে। কোরিয়ার স্বাধীনতাকামীরা চেষ্টা করছে কোরিয়াকে জাপানের নাগপাশ থেকে বেরিয়ে আনতে।

বাঙ চোঙ হোন

বাঙ চোঙহোনের বয়স তখন ১১ অথবা ১২ বছর। ১৮৯৯ সালে তিনি জন্মেছিলেন। তাদের পরিবার চার প্রজন্ম ধরে সুখে শান্তিতে একই স্থানে বসবাস করছিলো। তারা ছিলেন বনেদি ব্যবসায়ী। কিন্তু কোরিয়া জাপানের পদানত হবারপর থেকে তাদের পারিবারিক ব্যবসা লাটে উঠতে থাকে। একসময় তারা সর্বশান্ত হয়ে পড়ে। বাধ্য হয়ে বাঙ হোনচোঙকে চাকুরি নিতে হয়। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: আব্দুল্লাহ আল শামছ বিল্লাহ

tea-garden6512চা, অত্যন্ত জনপ্রিয় পানীয়। বাংলাদেশের এমন কোন প্রান্ত পাওয়া যাবে না যেখানে এই পানীয়টির চল নেই। নাগরিক জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে এটি। ক্লাসের ফাঁকে, অতিথি আপ্যায়নে, অফিসে, আড্ডায় বা বিকালের নাস্তায় এটি লাগবেই।

১৮৪০ সালে, চট্টগ্রাম থেকে এখানে চা চাষের ইতিহাস শুরু হয়। বর্তমানে ১৬৪টিi বাগানে চা এবং আরও কিছু বাগানে অর্গানিক চা চাষ হচ্ছে। এখন বাংলাদেশ প্রতি বছর প্রায় ৬০ মিলিয়ন কিলোগ্রাম চা উৎপাদিত হয়, যা বিশ্বে চা উৎপাদনে ১১তম। উৎপাদিত চা দেশীয় চাহিদা মিটিয়েও বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে, যাতে প্রায় ০.৮১ ভাগ জিডিপি অর্জিত হয় এই চা শিল্প থেকে। প্রায় ৫ লাখ লোক চা শিল্পের ওপর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্ভরশীল। যার মধ্যে প্রায় ১,৫০,০০০ শ্রমিকই আদিবাসী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠী। মূলত যেসব স্থানে চা বাগান রয়েছে, সেসব অঞ্চলে কর্মসংস্থানের একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মক্ষেত্র হলো এই চা বাগান। এছাড়াও চাবাগানের অপূর্ব মনোমুগ্ধকর প্রকৃতি পর্যটন শিল্প হিসেবে গড়ে উঠেছে। (বিস্তারিত…)