Posts Tagged ‘অরুন্ধতী রায়’


লিখেছেন: শাহেরীন আরাফাত

অরুন্ধতী রায়প্রতিরোধ, সংগ্রামের এক জীবন্ত প্রতিছবি। তাঁর সংগ্রাম একমুখী ছিল না। তাঁর রাজনৈতিক চেতনার বিকাশও সরলরৈখিক বা এক ঝটকায় আসেনি। অরুন্ধতীর সাহিত্য চর্চাও এই রাজনৈতিকতার বাইরে থাকেনি। চেতনাগত বিকাশের পর্যায়ে উপন্যাসের কথিত ছক ভেঙে সেখানে তিনি তাঁর রাজনৈতিক অবস্থানকে মেলে ধরেছেন। সামাজিক অব্যবস্থা ও রাষ্ট্রের কথিত সর্ববৃহৎ গণতন্ত্রের নামে অগণতান্ত্রিকতার বিরুদ্ধে সংগ্রামঅরুন্ধতী রায়কে রাজনৈতিক অ্যাক্টিভিস্টে পরিণত করে।

অরুন্ধতী রায় কালির অক্ষরে চালিয়ে যাচ্ছেন এক বন্ধুর সংগ্রাম। যেখানে জাতিগত, সম্প্রদায়গত, বা গণতান্ত্রিক অধিকার এবং ন্যায়বিচারের দাবি করাটা তার রাজনৈতিক চিন্তাচেতনারই অংশ। তিনি ভারতের বিচারব্যবস্থা থেকে শুরু করে শাসন কাঠামোবিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। আর এজন্য তার নিন্দুকেরও অভাব পড়েনি কখনও। তার বিরুদ্ধে আনা হয় রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ। (বিস্তারিত…)

Advertisements

অনুবাদ: তানজীর মেহেদী

১৬ নভেম্বর ২০১১। অকুপাই ওয়াল স্ট্রিট আন্দোলন নিয়ে ওয়াশিংটন স্কয়ারে দেওয়া অরুন্ধতী রায়ের বক্তৃতা

অরুন্ধতী রায়

A few “pre-revolutionary” thoughts I had : Arundhati Roy

Text of a speech given by Arundhati Roy at the People’s University in Washington Square, NYC on November 16th, 2011.

পুলিশ মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) সকালে জুকোটি পার্ক খালি করে ফেলেছিল, কিন্তু আজ এখানে আবার সবাই ফিরে এসেছে। পুলিশের জেনে রাখা উচিত, এই আন্দোলন কোনও অঞ্চল দখলের যুদ্ধ নয়। আমরা এখানে সেখানে কোনও পার্ক দখলের যুদ্ধ করছি না। আমরা ন্যায়ের প্রশ্নে যুদ্ধ করছি। আর ন্যায় বিচার শুধু যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের জন্য নয়, বরং সকলের জন্য।

১৭ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে অকুপাই আন্দোলন শুরুর মধ্য দিয়ে যা অর্জিত হয়েছে, তার মধ্যে আছে সাম্রাজ্যের কেন্দ্র থেকে একটি নতুন কল্পনার সঙ্গে এবং একটি নতুন রাজনৈতিক ভাষার সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়া। সমঅধিকার বঞ্চিত হয়েও পূর্ণতৃপ্তি আর খুশির সঙ্গেই যখন একটি ব্যবস্থা ভোগ্যপণ্য ক্রেতা সাধারণকে সম্মোহিত করার প্রাণান্ত চেষ্টা করছে, ঠিক তখনই এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আপনারা সেই অধিকারকে আবারও সামনে নিয়ে এলেন, যা আমাদের স্বপ্ন দেখতে শেখায়। (বিস্তারিত…)


অনুবাদ: তানজীর মেহেদী

অক্যুপাই ওয়াল স্ট্রিট ইজ ‌সো ইর্ম্পটেন্ট বিকজ ইট ইজ ইন দ্য হার্ট অব এম্পায়ার

ডেমোক্রেসি ওয়াচএ দেওয়া সাক্ষাৎকারে অরুন্ধতী রায়

অরুন্ধতী রায়

(১৯৯৭ সালে ‘দ্য গড অব স্মল থিংস’ দিয়ে বুকার জিতে বিশ্বে আলোড়ন তুলেছিলেন ভারতের লেখিকা অরুন্ধতী রায়। পরে, সাহিত্যের বদলে তিনি আর্থসামাজিক ও রাজনৈতিক সমস্যা নিয়ে বেশি ব্যস্ত হয়েছেন। সমালোচনা করতে ছাড়েননি কাউকে। ভারতের বর্তমান উন্নয়ন মডেলেরও তীব্র সমালোচক তিনি। ১৫ নভেম্বর ‘ডেমোক্রেসি ওয়াচ’ কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নির্দ্বিধায় বলেছেন অক্যুপাই ওয়াল স্ট্রিট আন্দোলন, মাওবাদ, চলমান রাজনীতির নানা বিষয়ে।)

অ্যামি গুডম্যান: এখন কথা বলবো জনপ্রিয় ভারতীয় ঔপনাস্যিক, বিশ্বজুড়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় সক্রিয় কর্মী অরুন্ধতী রায়ের সঙ্গে। তিনি বেশ কিছু বই লিখেছেন। এগুলোর মধ্যে বুকার পুরস্কার জয়ী ‘দ্য গড অব স্মল থিংস’অ্যান অর্ডিনারি পারসন’স গাইড টু এম্পায়ার ফিল্ড নোটস অন ডেমোক্রেসি: লিসেনিং টু দ্য গ্রাসহোপার্স বই দুটিতে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে তারা সাংবাদিকতার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে লেখা প্রবন্ধসমূহ। সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে অরুন্ধতী রায়ের সর্বশেষ বই ওয়াকিং উইথ দ্য কমরেডস। এই বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে ভারত সরকারের সেনা মোতায়েনের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া বিদ্রোহী গেরিলাদের সঙ্গে জঙ্গলে কাটানোর সময়গুলির বর্ণনা। গত সপ্তাহে অরুন্ধতী যখন নিউ ইয়র্কে এসেছিলেন, তখন তার সঙ্গে বসেছিলাম আমি। নিউইয়র্কে এসে প্রথমদিনেই অকুপাই ওয়াল স্ট্রিটের আন্দোলন দেখতে যান তিনি। আন্দোলনের তাৎপর্য নিয়েও আলাপ হয় তার সঙ্গে। এছাড়াও আরব বসন্ত নিয়েও কথা হয়েছে। বাদ পড়েনি ভারতের জঙ্গলে মাওবাদীদের সঙ্গে কাটানোর সময়গুলোর কথাও। ১৬ নভেম্বর ওয়াশিংটন স্কয়ার পার্কে বক্তব্য রাখার কথা ছিল। প্রথমেই কথা বলেছি অকুপাই ওয়াল স্ট্রিট নিয়ে। (বিস্তারিত…)