Archive for the ‘আন্তর্জাতিক’ Category


কোভিড১৯ আগ্রাসনে যখন বিপর্যস্ত ভারত, তখনও অশীতিপর এক বৃদ্ধকে কারাগার থেকে মুক্তি দিতে নারাজ দেশটির কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। ভিমা কোরেগাঁও মামলায় কারাবন্দি রয়েছেন ৮১ বছর বয়সী বিপ্লবী কবি ভারাভারা রাও। ইতিমধ্যে ওই কারাগারে কয়েকজন কয়েদি কোভিড১৯ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এ বিপ্লবী কবির মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন দেশবিদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। সমাজে চিন্তাশীল, প্রগতিশীল মানুষ হিসেবে অন্তত মানবিক কারণে ভারাভারা রাওয়ের মুক্তির দাবিতে সোচ্চার হওয়া আমাদের নৈতিক দায়িত্ব বলে মনে করছি। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

হিন্দুত্ব’ নামক ধর্মসংস্কৃতিভিত্তিক জাতীয়তাবাদের উত্থান

তুলনামূলকভাবে দেখলে দেখা যাবে, আজ যে হিন্দুত্ববাদের বিষবৃক্ষটি ফুলেফলে পল্লবিত হয়েছে, ব্রিটিশ সরকারই নিজেদের সাম্রাজ্যবাদী স্বার্থে তার বীজ মাটিতে বপন করেছিল১৮৫৭ সালের মহাবিদ্রোহের পর ভারতীয় জনগণের একত্রিত বিদ্রোহী চেতনাকে ভাঙতে উপনিবেশবাদী ব্রিটিশ শাসকরা নিয়ে এসেছিল,ভাগ করো ও শাসন করো’ নীতিমূলত এর ওপর ভিত্তি করেই ভারতবাসীর মননে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের ঘনবিষ ঢুকিয়ে দেয় তারা। এরই মাধ্যমে ভারতীয় জনগণের ওপর তাদের শাসন, শোষণ ও লুণ্ঠনকে দীর্ঘায়িত করতে পেরেছিল১৮৭৫ সালে হান্টার সাহেবের লেখা ‘দ্য ইন্ডিয়ান মুসলমান’ বই থেকে ব্রিটিশরা আমদানি করেছিল ‘দ্বিজাতি তত্ত্ব’ (বিস্তারিত…)


লিখেছেন : সুশীল ঠাকুর এবং নির্ঝর মন্ডল

যে কোনো সামাজিকরাজনৈতিক গণআন্দোলনগণসংগ্রামের মধ্যেই দু’ধরনের লাইন, দু’ধরনের দৃষ্টিভঙ্গী লক্ষ্য করা যায়। একটি সঠিক লাইন, দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদী দৃষ্টিভঙ্গী তথা সর্বহারার শ্রেণী দৃষ্টিভঙ্গী সজ্জিত লাইন; অন্যটি বেঠিক লাইন তথা অদ্বান্দ্বিক, আধিবিদ্যক দৃষ্টিভিঙ্গী তথা অসর্বহারা দৃষ্টিভঙ্গীর প্রকাশ। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: সৌম্য মণ্ডল

অধিকার বোঝার হাসি

কি শুরু করেছেন আপনারা? কোন লাট সাহেব আপনারা যে, গরিব মানুষকে দয়া দেখাচ্ছেন? সহনাগরিক হয়ে মানুষকে তার অধিকার নিয়ে সচেতন না করে, কমরেড হয়ে শাসকশ্রেণীর বিরুদ্ধে সংগঠিত না করে, বাবু সেজে ত্রাণ বিতরণ করে ছবি তোলাটা সংসদীয় বা সংসদ বহির্ভূত কোন পার্টির লাইন? আমাকে উত্তটা দেবেন, নতুন থিওরি জানতে চাই। মানুষের মধ্যে সংগ্রামী চেতনা না গড়ে আপনারা ভিখারি চেতনা তৈরি করছেন। দীর্ঘ লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে গরীব মানু্ষের চেতনার যেটুকু গণতান্ত্রিকীকরণ হয়েছিল, চেতনার যেটুকু প্রগতি অর্জিত হয়েছিল কমরেডের রক্তের বিনিময়ে, সব আপনারা নষ্ট করার জন্য ওঠে পড়ে লেগেছেন। ইতিহাস আপনাদের ক্ষমা করবে না। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন : অজয় রায়

কোভিড১৯ বিশ্বব্যাপী মহামারির আকার নিয়েছে। গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে নভেল করোনাভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে এখন পর্যন্ত তা ২০৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।[] এই সংক্রমণে ২৯ মার্চ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৭ লাখ ১৪ হাজার ৯৫০ জন। মারা গিয়েছেন ৩৩ হাজার ৬৩৩ জন যার মধ্যে সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত দুই দেশ হলো ইতালি এবং স্পেন। চীন ও ইউরোপের পর এখন এই রোগের নতুন ভরকেন্দ্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রএদিকে, ইরানে এই সংক্রমণ দ্রুত হারে বেড়ে চলেছেকিন্তু সেদেশের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম আমদানি বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে। একইরকম চাপের মুখে রয়েছে ভেনেজুয়েলা। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন : শাহেরীন আরাফাত

১৯৪৭ সালের ১১ আগস্ট মণিপুরের মহারাজা বোধ চন্দ্র আর ইংরেজ সরকারের গভর্নর জেনারেল লুই মাউন্টব্যাটনের মধ্যে এক চুক্তির মধ্য দিয়ে মণিপুর রাজ্যকে ডোমিনিয়ান বা স্বায়ত্বশাসনের মর্যাদা দেওয়া হয়। পরবর্তীকালে, ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট মণিপুর একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষিত হয়। ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদীরা ভারতপাকিস্তানের শাসক শ্রেণীর হাতে ক্ষমতা তুলে দিলেও কোনো কোনো ভূখণ্ড তখনো ভারতপাকিস্তানের সঙ্গে না গিয়ে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ছিল। তাদের একটি মণিপুর। ১৯৪৮ সালে গণভোটের মাধ্যমে মণিপুরের জনগণ রাজাকে সাংবিধানিক প্রধান নির্বাচিত করে, রাজার অধীনে একটি সরকার শপথ গ্রহণও করে। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন : অজয় রায়

ব্রেক্সিট (ব্রিটেন এক্সিট), অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদ প্রক্রিয়ার জন্য সময় বেড়েছে ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি অবধি।[] ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ২৭ সদস‌্য রাষ্ট্র তাতে রাজি হয়েছে। ইইউ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ডোনাল্ড টাস্ক সম্প্রতি জানান, যুক্তরাজ্যকে ‘ফ্লেক্সিবল এক্সটেনশন’এর সুবিধা দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি অনুমোদন হয়ে গেলে যুক্তরাজ্য এই সময়সীমার আগেও ইইউ থেকে বেরিয়ে যেতে পারে। এদিকে, গত ২৯ অক্টোবর ব্রিটেনের পার্লামেন্ট আগামী ১২ ডিসেম্বর আগাম সাধারণ নির্বাচন আয়োজনের পক্ষে ভোট দিয়েছে।[] (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: অজয় রায়

দক্ষিণ আমেরিকার আমাজন অরণ্য পুড়ছে। বিশেষত, ব্রাজিলে এই দাবানল ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এ বছরের প্রথম আট মাসে আমাজনে ৭২ হাজার বারেরও বেশি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। যা গত বছরের এই সময়ের তুলনায় ৮৪ শতাংশ বেশি। ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থাইনপে এই তথ্য জানিয়েছে।[] আগুনের ঘটনা ঘটেছে ভেনেজুয়েলা এবং বলিভিয়ায়ও। এর মধ্যেই জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে গত মাসের শেষ সপ্তাহে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি জাইর বলসোনারো বলেন, আমাজন অরণ্যাঞ্চলকে পৃথিবীর ফুসফুস দাবি করা ভুল ধারণা। কিন্তু এই বক্তব্যের পক্ষে তিনি কোনো যুক্তি দেননি। এদিকে, জলবায়ু পরিবর্তনের মোকাবেলার প্রশ্নে ‘বিশ্ব নেতাদের নিষ্ক্রিয়তা এবং সেই সঙ্গে বলসোনারোর মার্কিন সফরের প্রতিবাদে প্রায় আড়াই লাখ মানুষ বিক্ষোভ করেছেন শুধু নিউইয়র্ক শহরেই।[] বিশ্বের নানা প্রান্তে লাখ লাখ মানুষ এ নিয়ে পথে নেমেছেন। (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: অজয় রায়

লাতিন আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলায় প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর নেতৃত্বাধীন সরকারকে ফেলে দেওয়ার তৎপরতা চলছে। স্পষ্টতই, সেদেশের শাসকশ্রেণীর সিংহভাগসহ সাম্রাজ্যবাদী শক্তি এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার দোসররা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরও বাড়িয়েছে। কূটনৈতিকভাবে বিচ্ছিন্ন করতে চাইছেভেনেজুয়েলায় রয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম তেল ভাণ্ডারযা পুরোপুরি কব্জা করতে চায় তারা (বিস্তারিত…)


লিখেছেন: শাহেরীন আরাফাত

কাশ্মীরে পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসীগোষ্ঠী জইশমোহাম্মদ হামলা চালিয়ে অন্তত ৪৪ জন আধা সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) সদস্যকে হত্যা করেছে। এ নিয়ে কয়েকজন বন্ধুর বিক্ষিপ্ত মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই নিজের অবস্থান জানান দেওয়াটা জরুরি মনে করছি।

শত্রুর শত্রু মিত্রএমন চিন্তা যেমন সঠিক নয়; তেমনি শত্রুর উপর হামলা হলেই সেটা ন্যায্যতা পেতে পারে না। বরং কে, কোন উদ্দেশ্যে, কার উপর হামলা চালালোসেটাই বিষয়টির দৃষ্টিভঙ্গীর মোদ্দা কথা। কোনো সন্ত্রাসীগোষ্ঠী সাম্রাজ্যবাদসম্প্রসারণবাদের বুকে ছুরি চালালেও ওই সংগঠন সন্ত্রাসীই থাকে। আবার জনগণের মধ্যকার কোনো বিপ্লবী শক্তির যদি সেই মাপের সশস্ত্র আক্রমণ করার শক্তি নাও থাকে, তবুও সেটি অবশ্যই বিপ্লবী শক্তি। কারণপার্থক্যটা গড়ে দেয় সেই চিন্তা কাঠামোযা নির্ধারণ করে কে কার পক্ষেকে গণমুখী, আর কে গণবিরোধী। আর এ কারণেই যখন সাধারণ কাশ্মীরী, বা তাদের স্বাধীনতার পক্ষে কোনো সংগঠন এমন হামলা চালালে, তার এক ভিন্ন ন্যায্যতা প্রাপ্য। আবার পার্শ্ববর্তী দেশের সেনাসমর্থিত সন্ত্রাসীরা ওই হামলা চালালে তা ন্যায্যতা পেতে পারে না। সন্ত্রাসীদের উদ্দেশ্য স্বাধীনতা নয়, কাশ্মীরের পাকিস্তানে অন্তর্ভুক্তি! (বিস্তারিত…)