কবিতা :: হাজার বছর ধরে

Posted: অক্টোবর 17, 2017 in সাহিত্য-সংস্কৃতি
ট্যাগসমূহ:, , , , ,

লিখেছেন: রক্তিম ঘোষ

কাল পাহাড়ি আগুন শিখা রামধনু যার চোখের কোণে

খুনসুটি আর চিতার দহন, স্মৃতির হিসেব বিজ্ঞাপনে

চোখের জলের কোনটা হিসাব কাল কুয়াশার আবছায়াতে

শুকনো মরুর কোন প্যাপিরাস নক্সা সাজায় নীলের খাতে?

ধূসর বিকেল সন্ধ্যেবেলা সন্ধ্যা তারার অংক বদল

হাজার বছর, সেই দুটো চোখ জ্বলছে আগুন চিতার মতন

নাম ভুলে যাই বৌদ্ধ মঠের শীতের রাতে তুষার ঝড়ে

ভিক্ষুনী তোর কামনাহীন উষ্ণ প্রেমের শ্বেত আদরে

হাজার বছর পিরামিডের অন্ধকুপে ঘুমের ফাঁকে

প্যাপিরাসের শুকনো পাতায় রক্তে লেখা যন্ত্রণাকে

লুকিয়ে রেখে পার হয়েছি বুক চেরা নীল তৈরি পথে

ক্রুশে গাঁথা লাশ ছুঁয়েছিস, অন্ধযুগের আদিম ক্ষতে।

এক ফোঁটা জল রক্ত কেনার, কারবালা তার হিসাব গোনে

খুনসুটি আর চিতার দহন, স্মৃতির হিসেব বিজ্ঞাপনে

তুঘলকি আইন দিল্লী ফেলে হাজার বছর হাঁটার আগে

একলা কবর মেথ ইঁদুর, শ্বদন্তে ছোঁয় কালবেলাকে;

মেহেজবীন, খোলা চুলে ভিজিয়ে যেতিস কবরখানা

আঁসুর হিসেব মধ্যযুগের রাজ রাজড়ার নিয়ম মানা।

খোলা চুলের মরু ঝড়ে এই মাটিতে রাত্রি নামে

নাম না জানা নদীর তীরে চাঁদ হাঁসুয়ার রক্তে ঘামে।

নিষিদ্ধ তোর ভক্তিগীতি, সুফী গানের ছন্দে পতন

হাজার বছর, সেই দুটো চোখ জ্বলছে আগুন চিতার মতন।

বিজ্ঞাপনের নীল বাজারে শরীর মানে পণ্য কেনা

গর্ভবতী মাটির লাঙল, রক্তের দাগ শুকোচ্ছে না।

শীত কুয়াশায় অন্ধ দুচোখ, ভালবাসাও টাকায় চলে

সেই দুটো চোখ রামধনু তোর, হাজার বছর মশাল জ্বলে,

কাঁটাতারের দুই দিকে তোর কবর খোঁজা অভ্যাসে রোজ

আকাশখানাও বন্দীশালা, শিকল বাঁধা আগুন নিখোঁজ

একলা থাকাও আলিঙ্গনই, উন্নয়নে বদ্ধজীবন

হাজার বছর আঁকড়ে রাখা স্মৃতির হিসেব, চিতার দহন।

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s