পহেলা বৈশাখ এবং ‘পার্থক্য ভুলিয়ে দেওয়ার’ গল্প

Posted: এপ্রিল 14, 2016 in দেশ
ট্যাগসমূহ:, , , , ,

লিখেছেন: ফারুক আহমেদ

boishakhপহেলা বৈশাখ এবং এই জাতীয় সর্বজনীন উৎসব এলেই প্রধান প্রধান পত্রিকাগুলোতে, বৈদ্যুতিক মাধ্যমে, এসব আশ্রিত বুদ্ধিজীবীদের পক্ষ থেকে, শাসক শ্রেণিতো বটেই শাসক শ্রেণি আশ্রিত বাম নামধারীদের পক্ষ থেকেও তারস্বরে আওয়াজ উঠতে থাকে– ‘এই দিন পার্থক্য ভুলে যাওয়ার দিন, এই দিন বাঙালীর ঐক্যের দিন ইত্যাদি ইত্যাদি। প্রশ্ন হলো কিসের পার্থক্য? কার সাথে কার ঐক্য? এ পার্থক্য যদি হয় শাসক শ্রেণির লুণ্ঠনের ভাগাভাগির বিরোধ এবং ঐক্য যদি হয় তাদের ঐক্য, তা হলে সেখানে বলবার কিছু থাকে না। কিন্তু যাদের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তারা এই পার্থক্য বুঝায় না। বাঙালীত্বের বাগাড়ম্বরে তারা বুঝাতে চায় ধনীগরীবের পার্থক্য, শোষক আর শোষিতের পার্থক্য, জনগণ এবং দুর্বৃত্তের পার্থক্য। এই দিনে তারা এসব পার্থক্য ভুলিয়ে দেওয়ারই কথা বলে। এর মধ্যদিয়ে তারা যে জনগণের আনন্দ উৎসবের দিনগুলো শোষক, লুণ্ঠক এবং তাদের সেবাদাস দুর্বৃত্তদের দখলে নেওয়ারই মতলব করে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।

একথা ঠিক যে, যেখানে ব্যাপক জনসংখ্যার একদিন কাজ না করলে পেটে অন্ন জোটে না, সেখানে সর্বজনীন উৎসব অনেকটাই ফাঁকা কথা ছাড়া আর কিছুই নয়। এর অর্থ এই নয় যে, এই ব্যাপক অধিকাংশ মানুষ যাঁরা শোষণ ক্লিষ্টতায় আর্থিক অপারগতায় এসব উৎসবে অংশ গ্রহণ করতে পারছেন না তাঁরা এসব উৎসব বিরোধী। আসল কথা হলো উৎসবে আংশ গ্রহণ তাঁদের জীবনে ঘটে না, হয়ে ওঠে না। যাঁদের সামান্য সামর্থ্য আছে তাঁরা এসব উৎসবে অংশগ্রহণ করে থাকেন। নিম্ন মধ্যবিত্ত এবং মধ্যবিত্ত যাঁরা আছেন, এসব উৎসবে অংশগ্রহণ করে থাকেন। এরাই প্রধান পত্রিকাগুলোর, বৈদ্যুতিক মাধ্যমের, এসব আশ্রিত বুদ্ধিজীবীদের টার্গেট গ্রুপ। এদের প্রচারের মূল জায়গাটা হলো এসব উৎসবে অংশগ্রহণ মানেই যাঁরা অংশগ্রহণ করছেন তাঁরা ধনীগরীব, শোষকশোষিত, জনগণদুর্বৃত্ত সকল বৈষম্য ভুলে যচ্ছেন। ‘এই দিন হলো সবকিছু ভুলে যাওয়ার দিন’। এর মাধ্যমে জনগণের অর্থে কিন্তু শোষকদুর্বৃত্তদের মালিকানায় পরিচালিত এসব মাধ্যম এবং তাদেরই সেবাদাস বুদ্ধজীবীরা শোষকদুর্বৃত্তদের জনগণের কাছে নিয়ে আসার কৌশলই আঁটে।

নির্মল আনন্দউৎসব সব সময়ই মানুষে মানুষে ঐক্যের সেতুবন্ধন তৈরী করে। নিরানন্দে ঐক্য হয় না, ঐক্য হয় আনন্দে এবং আনন্দ প্রত্যাশায়। যে আনন্দে মানুষ অংশগ্রহণ করতে চায় কিন্তু শোষণের কারণে পারে না সেখানে বৈষম্যটাও স্পষ্ট হয়। যাঁরা অংশগ্রহণ করছে তাঁদের কাছে এবং যাঁরা অংশগ্রহণ করতে পারেছে না তাঁদের কাছেও। বৈষম্যের এই স্পষ্ট হওয়াটা শোষকের ভয়ের কারণ বটে। তাই তারা সব সময়ই মানুষের উন্মুক্ত আনন্দ উৎসবের বিরূদ্ধে। এসব উন্মুক্ত আয়োজনে শোষকদের আনন্দ বলে কিছু নেই। তাদের চাই ভোগ এবং বিকৃতি। সেসব কখনোই উন্মুক্ত স্থা্নে হয় না। উন্মুক্ত স্থানে আনন্দ উৎসবে তাঁদের বিকৃতি পূরণ হয় না। জনগণের ঐক্যের বিরুদ্ধে তারা সব সময়ই উন্মুক্ত আনন্দ উৎসবের বিরূদ্ধে দাঁড়ায়। সেবক দুর্বৃত্তদের দ্বারা এরা এসব উন্মুক্ত আনন্দ উৎসবের ওপর হামলা চালায়। পোষা ফতোয়াবাজদের দিয়ে ফতোয়া দেওয়ায়। এদের প্রধান আক্রমণের লক্ষ্য হলো নারী। তারা ভাল করেই জানে পিতৃতান্ত্রিক সমাজে নারীর ওপর দোষ চাপিয়ে দেওয়াটা অনেক বেশি সহজ। ১৪২২ সনের পহেলা বৈশাখের উৎসবকে নিরানন্দ করার জন্য নারীর ওপর আক্রমণ করা হয়। নারী লাঞ্ছিত করার দৃশ্য গোটা দেশের মানুষ দেখেছেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের ছাড় দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই দুর্বৃত্তদেরই উৎসাহিত করার জন্য এবারের অনুষ্ঠানের ওপর উল্টো বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে দুর্বৃত্তদের জয় এবং লাঞ্ছিত নারীদেরই দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

এ ধরণের উন্মুক্ত আনন্দ উৎসবের ওপর একদিকে শোষকদুর্বৃত্তদের দখলদারীত্ব কায়েমের প্রয়াস এবং অপরদিকে এর ওপর আক্রমণ উভয় পন্থাই শোষকলুণ্ঠকদুর্বৃত্তরা গ্রহণ করে থাকে। তাই ‘পার্থক্য ভুলিয়ে দেওয়ার’ এবং এসব অনুষ্ঠানের ওপর আক্রমণ আপাত বিরোধী বলে মনে হলেও এসবই একই জায়গা থেকে উৎপত্তি। জনগণের পক্ষ থেকে এর বিরূদ্ধে জবাব হলো বৈষম্যকে স্পষ্ট করার মধ্যদিয়ে সকল বাধা অতিক্রম করে ব্যাপক জনগণের অংশগ্রহণে এসব উৎসবকে আরো বেশি সর্বজনীন করা এবং সর্বজনীন করার সকল বাধার বিরূদ্ধে লড়াইয়ে ঐক্যবদ্ধ হওয়া।।

পহেলা বৈশাখ ১৪২৩

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s