পহেলা বৈশাখ

Posted: এপ্রিল 14, 2015 in দেশ
ট্যাগসমূহ:, , ,

লিখেছেন: স্বপন মাঝি

Pohale_Boishakh-3বাঙালি বর্তমানে বাস করলেও, তার অতীতটাকে কিছুটা পরিমাণে হলেও বহন করে নিয়ে চলে এই যেমন টাকাকড়ি, গাড়ীঘোড়া আজ আর কড়িও নেই, ঘোড়ারও চল নেই কিন্তু স্মৃতি বহন করে নিয়ে চলেছে বাঙালি (এই ভাবনার ঋণ স্বীকার করছি মান্যবর কলিম খানের কাছে)

পান্তা ভাত ছিল বাঙালির সকালের নাস্তা ধনী গরীব বলে খুব একটা ভেদ ছিল, এ নাস্তা নিয়ে; চোখে পড়েনি। আমার নানার বাড়ীতেই দেখেছি সকালে পান্তা ভাত বেশ ধনধান ছিল তাদের

শহরবাসী হয়ে বাঙালি যদি পান্তাকে ভুলে না গিয়ে বছরের একদিন, উৎসব করে খায়; তো কী এমন ক্ষতি হয়ে যায়? কী কারণেই বা কীবোর্ড কমান্ডোরা হামলে পড়েছে, ফতোয়াবাজ মোল্লাদের মত?

গ্রামের ব্যবসায়ীরা হালখাতা করত খাজনা আদায় করা হত; এসব সত্য কিন্তু একমাত্র সত্য নয় গ্রামের কামার কুমার, ফেরিওয়ালা, কৃষকদের জন্যও এ দিনটি ছিল কাঙ্খিত এদিন কামার কুমার, ফেরিওয়ালারা তাদের পসরা নিয়ে বসত মেলায় কী পাওয়া যেত না এদিন? অত্যাবশ্যকীয় বিবিধ পণ্যের সমাহার ছিল মেলার প্রাণ কৃষকরাও মেলার অপেক্ষায় থাকত কেনাকাটা করার জন্য

নিজের কথা একটু বলি:

ছোট বেলায় থরথর উত্তেজনায় অপেক্ষা করতাম, পহেলা বৈশাখের জন্য। ঈদ ছাড়া ঐ একটি দিন ছিল, আমাদের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত। চৈত্র মাসের প্রথম থেকে শুরু হয়ে যেত পিত্তাস গুটা (নাম ভুল হতে পারে, পিত্তাস গাছের বীচি) সংগ্রহের অভিযান। গাছের এ ডাল ও ডাল থেকে লাল টকটকে ফল পেড়ে এনে, মখমলের মত নরম খোসা ছাড়িয়ে খয়েরি রঙের বীচি জমিয়ে রাখতাম, যক্ষের ধনের মত। তারপর সেই কাঙ্ক্ষিত দিনে ওগুলো বিক্রি করে দিয়ে যা আয় হত, (নিজের উপার্জন বলে কথা) তা দিয়ে বাতাসা, বাঁশি, মুরলি কিনে গ্রামের পথ দিয়ে যখন হেঁটে আসতাম, মনে থাকত দ্বিগবিজয়ের আনন্দ।

এই একটিমাত্র উৎসব যার উৎসে মানুষের সম্মিলন, মানুষ হিসাবে; কোন হিন্দু বা মুসলিম বা খ্রিস্টান বা ধনী বা গরীব হিসাবে নয়; তাকে বধ করার জন্য ফতোয়াবাজ মোল্লাদের মাঠে নেমেছেন কিছু বামপন্থী বন্ধু তা বামপন্থী বন্ধুদের ক্রোধক্ষোভদাহদ্রোহ অনুমান করতে পারি

কিন্তু পহেলা বৈশাখ তো শুধু ধনীর পান্তাইলিশ নয়; গ্রামের হালখাতা নয়, মহাজনের পাওনা আদায় নয়, খাজনা আদায় নয়; গ্রামের কামার কুমার দোকানদার ফেরিওয়ালাদেরও

এ কথা ভুলে না গিয়ে আঙ্গুল উত্তোলন করাই শ্রেয়।।

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s