লিখেছেন: অজয় রায়

venezuela-crisis-21ভেনেজুয়েলায় নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে বিরোধীপক্ষ গত ফেব্রুয়ারি থেকেই ব্যাপক হিংসা ছড়াচ্ছে। যাতে ইতিমধ্যে ৪২ জন নিহত ও ৯০০ জন আহত হয়েছেন।[] যাদের মধ্যে রয়েছেন পুলিশ আধিকারিক, বিরোধীপক্ষের কর্মী এবং সরকারের সমর্থকরাও। তবে এই “বিক্ষোভ চলছে প্রধানত ধনী ও উচ্চমধ্যবিত্তঅধ্যুষিত অঞ্চলগুলিতে।

রাষ্ট্রপতি নিকোলাস মাদুরোকে হত্যা করে সেনা অভ্যুত্থানের দ্বারা ভেনেজুয়েলার সরকার ফেলে দেওয়ার ষড়যন্ত্রও হয়েছিল। যাতে জড়িত থাকার অভিযোগে তিরিশ জন সেনা আধিকারিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে তিন জন বিমান বাহিনীর জেনারেল।[] আর সেদেশের সরকার জানিয়েছে, সেনা অভ্যুত্থানের ছকের পিছনে বিরোধীপক্ষের নেতানেতৃদের একাংশের এবং সেই সঙ্গে মার্কিন প্রশাসনের হাত থাকার প্রমাণ মিলেছে।

গণতন্ত্র ও মানবাধিকার” রক্ষার অজুহাতে ওয়াশিংটন মদত যোগাচ্ছে ভেনেজুয়েলার চরম দক্ষিণপন্থী দাঙ্গাকারীদের। যাদের ন্যাশনাল এনডাওমেন্ট ফর ডেমোক্র্যাসি এবং ইউএস এইড’র মতো মার্কিন সংস্থাগুলির মাধ্যমে অর্থসাহায্য দেওয়া চলছে। আর মার্কিন প্রতিনিধি সভা দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ সংক্রান্ত একটি বিল পাস করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিলটি এখনও স্থগিত রয়েছে এবং আইনে পরিণত হওয়ার আগে অবশ্যই চূড়ান্তভাবে মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে। এভাবে স্পষ্টতই তেল সমৃদ্ধ ভেনেজুয়েলার উপর পূর্ণাঙ্গ নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে চাইছে ওয়াশিংটন।

Maduro_venezuelaপ্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভেনেজুয়েলার জাতীয়তাবাদী সোস্যাল ডেমোক্র্যাটিক সরকার প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুগো শ্যাভেজের নেতৃত্বে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছিল। আর বিভিন্ন প্রগতিশীল অর্থনৈতিক সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। যার ফলে শ্যাভেজের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ইউনাইটেড সোসালিস্ট পার্টি অফ ভেনেজুয়েলা’র (পিএসইউভি) সরকারের প্রতি এখনও জনসাধারণের উল্লেখযোগ্য অংশের সমর্থন বজায় রয়েছে।

তবে যেটা লক্ষণীয়, ভেনেজুয়েলার মোট রপ্তানি তেলের ৪০ শতাংশই যায় মার্কিন মুলুকে।[] সম্প্রতি রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন ভেনেজুয়েলার তেল কোম্পানি পিডিভিএসএ এবং কুখ্যাত বহুজাতিক হেলিবার্টন পরিচালিত একগুচ্ছ জ্বালানি পরিষেবা সংস্থার মধ্যে ২০০ কোটি মার্কিন ডলারের একটি ঋণ চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়েছে।[] যখন বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, মাদুরো সরকার এমন কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে প্রস্তাব বিবেচনা করছে, যা সেদেশের তেল থেকে প্রাপ্ত রাজস্বের পুরোটাই ফের আর্থিক উপায়ে পুঁজিপতিদের কব্জা করে নেওয়ার পথ প্রশস্ত করতে পারে।

এদিকে ইউনিয়ন অব সাউথ আমেরিকান নেশনস’র বিদেশমন্ত্রীদের একটি দল আর ভ্যাটিকানের প্রতিনিধির মধ্যস্থতায় ভেনেজুয়েলার সরকার ও বিরোধীপক্ষের জোট ডেমোক্র্যাটিক ইউনিটি রাউন্ডটেবল‘র (এমইউডি) মধ্যে ‘আলোচনা’ চলছে আপসমীমাংসার লক্ষ্যে। এর পাশাপাশি বাণিজ্যিক সংবাদমাধ্যমগুলিকে ব্যবহার করে ব্যাপক মাত্রায় বিভ্রান্তিকর প্রচারও চালানো হচ্ছে। এভাবে চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে, যাতে মাদুরোর সরকার আরও দক্ষিণপন্থী নীতি গ্রহণে করতে বাধ্য হয়।

বৃহৎ ব্যবসায়ীদের সঙ্গেও ‘আলোচনা’ চালাচ্ছে ভেনেজুয়েলার সরকার। অপর দিকে ক্রমবর্ধমান মন্দার বোঝা চাপানো হচ্ছে মেহনতি মানুষের ঘাড়ে। যাতে শ্রমিককর্মচারীদের অধিকার খর্ব হচ্ছে। আর দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রকৃত মজুরি সঙ্কোচন ঘটছে। ফলে, শ্রমিকশ্রেণীর দুশ্চিন্তা বাড়ছে। আর তাঁরা সরব হচ্ছেন সরকারের নীতির পরিবর্তনের দাবিতে।।

তথ্যসূত্র

[] Ewan Robertson, “Venezuelan Opposition Figures Face Allegations of Conspiracy”, 7 June 2014

[] Ewan Robertson, “Thirty Venezuelan Military Officials Allegedly Under Arrest for Coup Plotting”, 14 April 2014

[] “Viewpoint: New era for US-Venezuela relations?”, 6 March 2013

[] “UPDATE 1-Venezuela’s PDVSA gets $2 bln credit line from oil service companies”, 21 May, 2014

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s