তোলপাড় তুরস্ক – গণবিক্ষোভে গর্জে উঠছেন মানুষ

Posted: জুন 13, 2013 in আন্তর্জাতিক
ট্যাগসমূহ:, , , ,

লিখেছেন: অজয় রায়

turkey-movement-5কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটছে। এলোপাথাড়ি লাঠি চালাচ্ছে পুলিস। রাস্তায় রক্তাক্ত হচ্ছেন মানুষ। আর রক্ত ও ঘামের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ছে ক্ষোভ। পিছু হঠতে নারাজ প্রতিবাদী মানুষ। আজকের তুরস্কের এটাই বাস্তবতা।

তুরস্কে সরকারবিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে। পুলিসী দমনপীড়নও অবশ্য জারি রয়েছে, যাতে ইতিমধ্যেই তিনজন নিহত হয়েছেন। তুরস্কের মেডিক্যাল এসোসিয়েশনের তথ্য অনুযায়ী, গত ৫ই জুনে যেমন ৪,৩৫৫ জন আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়েছে []। এদিকে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, অন্তত দুই হাজার জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু, তাসত্ত্বেও লাখ লাখ মানুষ রাস্তায় নামছেন। পুলিসের কাঁদানে গ্যাস ও জলকামানের মুখোমুখি হচ্ছেন।

এই বিক্ষোভ শুরু হয় গত মাসের শেষের দিকে। ইস্তাম্বুল শহরের কেন্দ্রস্থলে ট্যাক্সিম স্কোয়্যারে। যেখানে গেজি পার্কের গাছ কেটে শপিং মল বানানোর তোড়জোড় চলছিল। কিন্তু সেই অপচেষ্টার প্রতিবাদে এগিয়ে আসেন কিছু পরিবেশবাদী ও স্থানীয় তরুণতরুণী। যাদের উপর নিপীড়ন চালায় পুলিস। আর তার পর থেকেই বিক্ষোভ ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে দেশজুড়ে।

তুরস্কের স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে মানুষের মনের মধ্যে অনেক দিন ধরেই জমা হয়েছিল ক্ষোভের বারুদ, যাতে অগ্নিসংযোগ করেছে গেজি পার্কের ঘটনা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী রিসিপ তায়েপ এরদোগানের নেতৃত্বাধীন জাস্টিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির সরকার চলছে সেদেশে গত এক দশক ধরে। আর এই ফ্যাসিবাদী সরকার তুরস্কের ধর্মনিরপেক্ষতার ঐতিহ্য ধ্বংস করছে। দেশকে ইসলামীকরণের পথে নিয়ে যাচ্ছে। মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের দালালি করার বিদেশনীতি নিয়ে চলেছে। প্রতিবেশী দেশ সিরিয়ার সরকারবিরোধী সন্ত্রাসবাদীদের অস্ত্র ও প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। তাছাড়া জনবিরোধী বাজারমুখী অর্থনৈতিক নীতি অনুসরণ করায় তুরস্কে বাড়ছে সামাজিক অসাম্যও। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। ফলে জনসাধারণের মনের মধ্যে ক্ষোভ জমা হয়েছিলই। যা আজ গণবিদ্রোহের আকার নিয়েছে।

এই বিক্ষোভের স্বতস্ফূর্ততা লক্ষণীয়। নানা চিন্তাধারার মানুষজন প্রতিবাদে রাস্তায় নামছেন। এরদোগানের নেতৃত্বাধীন সরকারকে বরখাস্তের দাবি তুলছেন। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, এই আন্দোলনের স্থায়িত্বের জন্য প্রয়োজন প্রগতিশীল মেহনতী মানুষের আরো ঐক্যবদ্ধ উদ্যোগ। আর এমন এক আপসহীন অবস্থান, যা প্রকৃত বিকল্পের দিশা দেখাতে পারবে।।

 

তথ্যসূত্র

[] Cigdem Cidamli, “Urgent Call for Active Solidarity Action to Stop Police Brutality in Turkey!”, 06.06.13.

http://mrzine.monthlyreview.org/2013/cidamli060613.html

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s