Jatya Ganatantrik Ganamancha-1

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

তারিখ: ০৪ ডিসেম্বর ২০১২

.

রাজনৈতিক চক্রান্ত ও হাঙ্গামা বন্ধ কর, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তি নিশ্চিত কর!

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীতে সংগ্রামকে মার্কিনসহ সাম্রাজ্যবাদ, ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ এবং তাদের দালাল শাসক শ্রেণীর রাষ্ট্র উচ্ছেদ করে শ্রমিককৃষকজনগণের স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও সরকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে পরিণত করুন!

 

সম্প্রতি জামাত ইসলামী চলমান যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে প্রহসন হিসাবে চিহ্নিত করে তাদের নেতাদের মুক্তির দাবীতে লাগাতার সন্ত্রাসী তৎপরতা চালাবার পর হরতালের ডাক দিয়েছে। হরতালেও তারা ত্রাস সৃষ্টি করেছে। জামাত পুলিশের উপর হামলা করলেও রহস্যময় কারণে পুলিশ পড়ে পড়ে মার খাচ্ছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ম খা আলমগীর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পরিবর্তে ছাত্রলীগযুবলীগকে পাল্টা সন্ত্রাস সৃষ্টির আহ্বান জানিয়েছেন। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে উভয়পক্ষ অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে নেমেছে।

আওয়ামীলীগ কর্তৃক যুদ্ধাপরাধীর বিচারকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার ও জামাতের সাথে সমঝোতার ইতিহাস, জামাতের সাথে গোপন আঁতাতের সংবাদ, মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ কর্তৃক জামাতকে প্রকাশ্য সমর্থন, বিএনপির ভারতমূখীতা, সৌদি সমর্থিত জামাতকে পরিত্যাগের বিষয়ে ভারতকে প্রতিশ্রুতি প্রদান এবং জামাত হতে আলগা মনোভাব, আগামী নির্বাচন নিয়ে অনিশ্চয়তা, আওয়ামীলীগের পরাজয়ের আশঙ্কা, আগাম নির্বাচন ও জরুরী অবস্থা ঘোষণার গুঞ্জন, আশুলিয়ায় গার্মেন্টেসে আগুনের ঘটনার পর বিভিন্ন গার্মেন্ট কারখানায় আগুন দেয়ার সাজানো নাটক, জামাতের হামলা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কর্তৃক পাল্টা হামলার ডাকের পেক্ষাপটে যে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাতে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তি নিশ্চিত হবে কি নাতা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। আমরা সম্ভাব্য চক্রান্তের বিষয়ে জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানাই। সেই সাথে অবিলম্বে চলমান যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তি সম্পন্ন করাসহ পাকিস্তানি সামরিক ফ্যাসিস্টদের বিচারের আওতায় আনার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।

জামাতে ইসলামী শাসক শ্রেণীর সেই চরম প্রতিক্রিয়াশীল অংশের প্রতিনিধিত্ব করে যারা মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের দালাল সৌদি প্রতিক্রিয়াশীল শাসকদের মদদে ধর্মকে পুঁজি করে রাজনীতি করে চলেছে এবং সবসময় শ্রমিককৃষক জাতি ও জনগণের বিরুদ্ধে জিহাদ করছে। এরা ১৯৭১ সালে পূর্ববাংলার সমগ্র জাতি ও জনগণের মুক্তির আকাঙ্খার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল। কেবল এতেই তারা ক্ষান্ত হয়নি বরং পশ্চিম পাকিস্তানের সামরিক ফ্যাসিস্টদের দোসর হিসাবে এ জাতি ও জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল এবং ইতিহাসের এক নির্মম গণহত্যায় অংশগ্রহণ করেছিল। এ জাতি দুনিয়ার বুকে যতদিন টিকে থাকবে, ততদিন এ গণহত্যাকারী রাজাকারআলবদরআলশামসদের; তাদের চিহ্নিত নেতাদের ঘৃণা করবে এবং বিচার না হওয়া পর্যন্ত বিচার দাবী করবে।

১৯৭১ সালে শ্রমিককৃষকজনগণের বিজয় সম্ভব হয়নি; সম্ভব হয়নি শ্রমিককৃষকজনগণের গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ভারতীয় সম্প্রসারণবাদের অধীনে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে প্রতিক্রিয়াশীল শাসক শ্রেণী পূর্ববাংলার রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করে। মার্কিন, রুশসহ সাম্রাজ্যবাদ এবং ভারতীয় সম্প্রসারণবাদের দালাল আওয়ামীলীগ সরকার অচিরেই সিমলা চুক্তির মাধ্যমে পাকিস্তানের সামরিক ফ্যাসিস্ট যুদ্ধাপরাধীগণহত্যাকারীদের বিচারসহ পূর্ববাংলার ন্যায্য হিস্যা ও ক্ষতিপূরণ আদায়ের প্রশ্নে নতজানু আপোস করে। তারা রাজাকারআলবদরআলশামস্দের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার মাধ্যমে শাসক শ্রেণীর প্রতিক্রিয়াশীল ঐক্য ও ভাতৃত্বের পরিচয় দেয়। এ মৌলিক ঐক্যের কারণেই ১৯৮৬, ১৯৯৬ এবং ২০০৫ সালে জামাত ও ধর্ম ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর সাথে আওয়ামীলীগের ঐক্য সম্ভব হয়েছিল। রাষ্ট্র ও সংবিধানেও তারা ধর্মের ব্যবহার বজায় রেখেছে। এ পর্যন্ত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীকে আওয়ামীলীগ ও তাদের লেজুড় বাম দলগুলো জনগণকে বিভ্রান্ত করা এবং শাসক শ্রেণীর উপদলীয় রাজনীতির স্বার্থেই একান্তভাবে ব্যবহার করে এসেছে। ফ্যাসিস্ট আওয়ামীলীগ শ্রমিককৃষকজনগণের, কমিউনিস্ট ও বিপ্লবীদের সংগ্রাম দমন করার জন্যও ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার’ ইস্যুকে ব্যবহার করছে। আর এ কারণেই জাতীয় দৈনিকে জামাতলীগের গোপন আঁতাতের যে খবর বেরিয়েছে, তা যদি সত্য হয় তাতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই।

১৯৭৫ সালের পর বিএনপির নেতৃত্বে শাসক শ্রেণীর অপর অংশটি সংঘটিত হওয়ার কালে তারা জামাতের নেতৃত্বে শাসক শ্রেণীর চরম প্রতিক্রিয়াশীল অংশটির সাথে হাত মেলায়। মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের দালাল জেনারেল জিয়া এ জাতীয় বিশ্বাসঘাতকগণহত্যাকারীদের রাজনৈতিকভাবে পুনর্বাসিত করে, বিনিময়ে পাকিস্তানসৌদি অক্ষের মদদ নিশ্চিত করে। এ মৌলিক শ্রেণী ও উপদলীয় ঐক্যের কারণেই বিএনপি বারবার জামাতের সাথে জোট গঠন, মন্ত্রীত্ব প্রদানসহ সার্বিক বিকাশে সহায়তা প্রদান করেছে।

এরশাদ সংবিধানে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলামসহ নানাভাবে এ প্রতিক্রিয়াশীল ধর্মব্যবসায়ীদের হাতকে শক্তিশালী করেছে।

প্রতিক্রিয়াশীল জামাতে ইসলামী শাসক শ্রেণীর প্রধান দুই দলের সাথে সুবিধাজনক ঐক্য করে নিজের বিকাশ সাধন করেছে। এ শ্রমিককৃষকজনগণের প্রতি বৈরী মনোভাবের কারণে জামাতের নেতৃত্বে প্রতিক্রিয়াশীলরা জনগণের মধ্যে ভিত্তি গাড়তে ব্যর্থ হলেও রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের খাস দালাল সৌদিপাকিস্তানি আর্থিক ও গোয়েন্দা সহায়তায় একটা মজবুত অর্থনৈতিক ভিত্তি গড়ে তুলেছে।

সুতরাং মার্কিনসহ সাম্রাজ্যবাদ, ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ এবং তাদের দালাল শাসক শ্রেণীর অভ্যন্তরীন এ মৌলিক ঐক্যের কারণেই দীর্ঘ ৪২ বছরেও আমরা পাকিস্তানের সামরিক ফ্যাসিস্ট যুদ্ধাপরাধীগণহত্যাকারী এবং তাদের দোসরদের বিচার নিশ্চিত করতে পারিনি। একারণেই বিদ্যমান শাসক শ্রেণীর অধীনে তাদের উপদলীয় রাজনৈতিক সংঘাত ও জনদাবীর কারণে গুটি কয়েক দোসরদের প্রতীকী বিচার হলেও পাকিস্তানি সামরিক ফ্যাসিস্টসহ তাদের সহযোগী গণহত্যাকারী ও যুদ্ধাপরাধীদের প্রকৃত বিচার ও শাস্তি বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। শুধু তাই নয়, ধর্ম ব্যবসায়ী এ চরম প্রতিক্রিয়াশীল শাসকগোষ্ঠীর রাজনৈতিক ক্ষমতা চুরমার না করে, ধর্মের রাজনৈতিক ব্যবহার বন্ধ না করে, এ জাতি ও জনগণ প্রকৃত স্বাধীনতা ও মুক্তি অর্জন করতে পারবে না। পারবে না একটি স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও সরকার কায়েম করতে।

তাই আমরা সমগ্র জাতি ও জনগণের প্রতি আহ্বান জানাই, আসুন, শাসক শ্রেণীর বিচারবিচার খেলা ও চক্রান্ত থেকে নিজেদের মুক্ত করি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীতে সংগ্রামকে মার্কিনসহ সাম্রাজ্যবাদ, ভারতীয় সম্প্রসারণবাদ এবং তাদের দালাল শাসক শ্রেণীর রাষ্ট্র উচ্ছেদ করে শ্রমিককৃষকজনগণের স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও সরকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে পরিণত করি। আমাদের প্রাণের দাবী বাস্তবায়নের বাস্তব শর্ত সৃষ্টি করি।

দাবীসমূহ:

. রাজনৈতিক চক্রান্ত ও হাঙ্গামা বন্ধ করে অবিলম্বে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তি নিশ্চিত কর।

. যুদ্ধাপরাধী পাকিস্তানি সামরিক ফ্যাসিস্টদের বিচারের আওতায় আনাসহ পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশের ন্যয্যা হিস্যা আদায় কর।

. সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী বাতিলসহ রাজনীতি, সংবিধান ও রাষ্ট্রে ধর্মের ব্যবহার নিষিদ্ধ কর।

, ‘যুদ্ধাপরাধের বিচার’ ইস্যুকে ব্যবহার করে শ্রমিককৃষকজনগণের সংগ্রামের উপর দমননিপীড়ন বন্ধ কর।

.

বিবৃতি দাতা

 

মাসুদ খান                                                                             রাতুল বারী

আহবায়ক                                                                             সদস্য সচিব

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s