লিখেছেন: আলবিরুনী প্রমিথ

আমি দুঃখিত নই, স্বাধীনতা দিবসের

শুভেচ্ছা আপনাদের জানাবোনা বলে,

আমি দেখি আমার ঘরের জানালার পাশে

এক চিলতে জায়গা নেই, আকাশ নেই।

আমি আকাশ দেখতে চেয়েছিলাম, পারিনি

ডেভেলপড সোসাইটিতে আকাশ থাকেনা

থাকে সুউচ্চ বিল্ডিং, আকাশ তাই নেই।

আমি ব্যাথিত নই, স্বাধীনতার শুভেচ্ছা

আপনাদের জানাতে আগ্রহী না বলে,

এই রাষ্ট্র কেবল মুসলমানদের বলে স্বীকৃত

সংবিধান আর কারো জন্য কিছু রাখেনি।

এই কবিতাটি যখন পড়ছেন জানবেন,

হিন্দু বলে বিসিএসে কেউ আটকে যাচ্ছে

আদিবাসী কিশোরী ধর্ষিত হচ্ছে, দিনের আলোতে।

আমরা সব মেনে নিয়েছি, আমরা সব মেনে নিচ্ছি

তাই আমি স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানাবোনা।

আমি অনুতপ্ত নই, স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

আপনাদের জানাতে পারছিনা বলে, অনুতপ্ত নই

আমরা মৃত্যু নিয়ে নির্লজ্জ শ্রেণীতোষন শিখে গেছি,

মিউটিনীতে নিহত অফিসারেরা বীর, তাদের অমর

করে রেখেছে এই পাঁড় সামন্তীয় রাষ্ট্র, আমাদের সমর্থনে।

নিহত জওয়ানদের পরিবার একটি টাকাও কিন্তু পায়নি

টাকা তাদেরও প্রাপ্য এমনটা আমাদের মনে হয়নি,

তাই আমি আপনাদের স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানাবোনা।

আমার বুকে ব্যাথা হবেনা, আপনাদের স্বাধীনতা

দিবসের শুভেচ্ছা জানাতে পারবোনা বলে, ব্যাথা হবেনা।

নিশ্চিত জানবেন সামন্তীয় কিন্তু আরবান এই সোসাইটিতে,

প্রেমিক তার প্রেমিকার হাতে একগুচ্ছ রজনীগন্ধা তুলে দিলে

শোষণ, পরাধীনতা তাতে জড়িয়ে থাকে, সুবাসের সাথে।

নারী ধর্ষিত হলে শহীদ মিনারে বিক্ষোভ হবে, মিছিল হবে,

তিনি উচ্চশ্রেণীর কেউ হলে, অন্যরা বরাবরই অপাংতেয়

শ্রেণী নৈর্ব্যক্তিকতা আমরা শিখিনি, শিখতে চাইওনা।

আমার হৃদয় চৌচির হবেনা, আপনাদের স্বাধীনতা দিবসের

শুভেচ্ছা জানাতে পারছিনা বলে, হৃদয় শক্ত করে নিয়েছি।

যখন বুদ্ধিজীবীরা কলাম লিখছেন, কবিরা লিখে চলেছেন

যোনি, বক্ষ, ঘাস, ফুল নিয়ে একের পর এক কবিতা,

আমি দেখতে পাইনা কাউকে যিনি বলছেন বা লিখছেন

বছরের পর বছর আপাদমস্তক কালো পোশাকের ঘাতকেরা

বিনা বিচারে হত্যা করছে মুক্তিকামীদের, ট্রিগারের চাপে

মুক্তিকামী মানুষগুলো একের পর এক মরে যাচ্ছে, আইন নিশ্চুপ।

মানবাধিকার’ শব্দটি নিয়ে সেমিনার, সিম্পোজিয়াম চলে

ইচ্ছা করে তখন সড়সড় করে পেচ্ছাব করে দেই, তীব্র সেই ইচ্ছা।

আমি বিষাদে ভারাক্রান্ত নই, আপনাদের স্বাধীনতা দিবসের

শুভেচ্ছা জানাতে উৎসুক নই বলে, আমি বিষাদগ্রস্ত নই।

কর্পোরেট সমর্থিত দেশপ্রেমে উদ্দীপ্ত জনগন নেশাগ্রস্ত,

দেখছি তখন লঞ্চডুবিতে ভেসে উঠছে লাশের পর লাশ,

সেই মৃত্যোৎসবে কিছু যায় আসেনি, বিনিদ্র রজনী কেটেছে

আমাদের দেশ ক্রিকেট খেলায় জেতেনি, আহা কি দুঃখ !!!!

তাই আমি আপনাদের স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানাতে আগ্রহী নই,

শত বিভাজনের হিসেব নিকাশে যেই জাতি বিভাজিত থাকে

তার স্বাধীনতা পোশাকী, তাই শুভেচ্ছা আমি চাইনা।।

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s