লিখেছেন: আলবিরুনী প্রমিথ

বন্ধুবরেষু তোমাকে বলেছিলাম একদিন মনে আছে ?

আমাদের জন্ম, বেড়ে উঠা, কর্ম, মৈথুন সবই বেশ্যাপাড়ায়

সময় যায়, আমরাও উঁচু তলার বেশ্যাপাড়াতে উঠে যাই,

শুনে আঁতকে উঠবেনা নিশ্চিত জানি, তুমি অন্ধ নও বলেই।

কি কারনে তুমি নিজেকে নির্বাসিত বলতে বুঝিনি তখন

আজ যখন বুঝি তখন আমি দ্বীপান্তরিত, এ হতোই একদিন,

বেশ্যাপাড়াগুলো বিদ্রোহী সহ্য করেনা, বিদ্রোহ সহ্য করেনা,

সেগুলো ভালোবাসে হিপোক্রেসির পুনরুৎপাদন, তাকে চুমু খায়।

আনুগত্যে ভালোবাসায় সেখানে বাস করতে করতে তারা হয়ে উঠেছে

স্যুট টাই, ব্র্যান্ডেড শাড়ি সালওয়ার পরা একেকজন বেশ্যা।

বেশ্যাগুলো কথা বললেই মনে হয় তারা আসলে মল ত্যাগ করে

যখন হাসে তখন না দেখার পরেও বুঝি খাটাশ কেমন দেখতে

এদের সাথে থাকার অভিজ্ঞতা গর্দভের সাথে থাকার অভিজ্ঞতা,

এদের কথা শোনার অভিজ্ঞতা একপাল ছাগলের ম্যা ম্যা শোনার অভিজ্ঞতা।

তোমাকে কথাগুলো বলছি কারণ বেশ্যাপাড়াগুলোয় তোমার দম আটকে আসে,

তাই বুঝি গোপনে গোপনে চলছো, যদি কখনো তোমায় ঢুকিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু পালাতে পারবেনা, ধরা পড়লে নির্বাসন নয়, সোজা তুমি খাসী হয়ে যাবে,

এরা বিদ্রোহী পছন্দ করেনা, খাসী পছন্দ করে, এরা মগজ চায়না, চায় দালালী।

এরা ফুলকে ভালোবাসার ভান করে, যেন কাঁটা বিছিয়ে রাখতে সহজ হয়,

এরা পণ্যকে ঘৃনা করার ভান করে, আবার প্রতিদিন নিজেরাই বেকোয়।

নিজ জগতে নির্বাসিত হয়ে আমি ছক কাঁটছি, দিন গুনছি তাদের হারাবার

পালাতে নয়, নির্বাসিত হয়েছি নিজ পথে যাবার জন্য, পথচ্যুত হতে চাইনা,

সেই পথে আমি যাবই, সহযাত্রী হিসাবে তোমার কথাই ভাবতে পারি কেবল।

তুমি বেশ্যা হতে চাওনা, এসটাবলিশমেন্টের পুঁজ বয়ে বেড়াতে চাওনা,

এমন চাইলে পালিয়ে থেকোনা, সামনে চলে এসো, একেবারে সামনে

দাবি দাওয়া তাদের কাছে থাকবেনা, স্থির চোঁখে তাদের দিকে তাকিয়ে থাকবো,

বেশ্যাগুলো স্থির চোঁখে তাকিয়ে থাকলে কুঁকড়ে যায়, চোঁখের শক্তি জানেনা তাই।

তুমি আমি আমরা একটিবারও তাদের বলবোনা আমাদের বাঁচতে দাও,

হিমশীতল ঠান্ডার চেয়েও হিমস্বরে বলবো আমরা বাঁচবো, সরে দাঁড়াও

সবসময় তাই করতে হয় বন্ধু, বেশ্যাদের কাছে দাবি দাওয়া কিসের ?

তাদের জন্য দাবী দাওয়ার ভাষা নয়, তাদের জন্য একরোখা জেদের ভাষা,

যে ভাষা বুঝলে তারা বেশ্যা হতনা, বিদ্রোহ ভালোবাসত, বিদ্রোহী হতে ভালোবাসত।

(কবিতাটি বন্ধুবরেষু প্রীতম অংকুশকে উৎসর্গ করা হল, আমার দেখা এবং পরিচিত হওয়া সর্বপ্রথম কমরেড। –লেখক)

Advertisements

মতামত জানান...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s